ঢাকা ০১:২৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

হিমালয় সংলগ্ন জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে নেই আবহাওয়া অফিস

পীরগঞ্জ প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও::
দেশের উত্তরের জেলা ঠাকুরগাঁওয়ের চারটি উপজেলাই সীমান্তঘেঁষা। হিমালয়ের সংলগ্ন হওয়ায় এ জেলায় শীতের প্রকোপ বেশি থাকে। তবে শীতপ্রবণ জেলা হলেও নেই আবহাওয়া অফিস। আবহাওয়া সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য জানতে নির্ভর করতে হয় পাশের জেলার ওপর। এতে অনেক সময় ক্ষতির মুখে পড়ে কৃষক ও পেশাজীবী মানুষ।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আবহাওয়া অফিস না থাকায় গণমাধ্যম কর্মীরা সঠিক তাপমাত্রার খবর প্রচার করতে ব্যর্থ হচ্ছেন। সেই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত হন কৃষক। অনেকের আলু খেতে পচন রোধ ও বোরো ধানের বীজতলা নষ্ট হয়ে গেছে। সারা দেশে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার নিচে হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কথা থাকলেও সঠিক তথ্যের অভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব হয় না। এতে তীব্র শীতেও শিক্ষার্থীদের আসতে হচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে।
ঠাকুরগাঁও জার্নালিস্ট ক্লাবের সভাপতি রেজাউল প্রধান বলেন, ‘শীতের সময় তাপমাত্রা নিয়ে প্রতিনিয়ত আমাদের আপডেট দিতে হয়। অনেক সময় পাশের জেলার আবহাওয়া অফিস থেকে তথ্য নিতে হয়। আবার কখনো মুঠোফোন দেখে তথ্য দিতে হয়৷ এতে অনেক সময় সঠিক তথ্য দিতে ব্যর্থ হই।’

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

হিমালয় সংলগ্ন জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে নেই আবহাওয়া অফিস

আপডেট টাইম ০২:৫১:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৪

পীরগঞ্জ প্রতিনিধি, ঠাকুরগাঁও::
দেশের উত্তরের জেলা ঠাকুরগাঁওয়ের চারটি উপজেলাই সীমান্তঘেঁষা। হিমালয়ের সংলগ্ন হওয়ায় এ জেলায় শীতের প্রকোপ বেশি থাকে। তবে শীতপ্রবণ জেলা হলেও নেই আবহাওয়া অফিস। আবহাওয়া সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য জানতে নির্ভর করতে হয় পাশের জেলার ওপর। এতে অনেক সময় ক্ষতির মুখে পড়ে কৃষক ও পেশাজীবী মানুষ।
স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আবহাওয়া অফিস না থাকায় গণমাধ্যম কর্মীরা সঠিক তাপমাত্রার খবর প্রচার করতে ব্যর্থ হচ্ছেন। সেই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত হন কৃষক। অনেকের আলু খেতে পচন রোধ ও বোরো ধানের বীজতলা নষ্ট হয়ে গেছে। সারা দেশে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার নিচে হলে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কথা থাকলেও সঠিক তথ্যের অভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব হয় না। এতে তীব্র শীতেও শিক্ষার্থীদের আসতে হচ্ছে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে।
ঠাকুরগাঁও জার্নালিস্ট ক্লাবের সভাপতি রেজাউল প্রধান বলেন, ‘শীতের সময় তাপমাত্রা নিয়ে প্রতিনিয়ত আমাদের আপডেট দিতে হয়। অনেক সময় পাশের জেলার আবহাওয়া অফিস থেকে তথ্য নিতে হয়। আবার কখনো মুঠোফোন দেখে তথ্য দিতে হয়৷ এতে অনেক সময় সঠিক তথ্য দিতে ব্যর্থ হই।’