ঢাকা ১২:১৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রানীশংকৈলে জাইকার প্রকল্পে অনিয়ম

রানীশংকৈল(ঠাকুরগাও) প্রতিনিধিঃ- কোন ধরনের প্রচার প্রচারণা ছাড়ায় এবং প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতিকে তোয়াক্কা না করে ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈল উপজেলা মহিলা অধিদপ্তর কর্মকর্তার একক সিদ্বান্তে জাপান বাংলাদেশ কোঅপারেশন এজেন্সী(জাইকা) প্রকল্পের প্রশিক্ষণার্থী নিয়োগের অভিযোগ উঠেছে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আবিদা সুলতানার বিরুদ্বে।
জানা যায়, জাপান বাংলাদেশ কোঅপারেশন এজেন্সী(জাইকা) অর্থায়ানে চল্লিশজন মহিলাকে প্রতিদিন তিনশত টাকা হারে সন্মানী প্রদানের সুযোগ রেখে উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আওতায় অতি দরিদ্র ও দরিদ্র মহিলাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষে ব্লক বাটিক ও বুটিক প্রশিক্ষনের প্রশিক্ষনার্থী নিয়োগে একটি কমিটির করা হয়। এ কমিটির সভাপতি হিসেবে মনোনীত করা হয় উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা বেগম পুতুলকে।
নিয়মনুযায়ী প্রচার প্রচারনার মাধ্যমে প্রশিক্ষনে ইচ্ছুক প্রার্থীর নিকট আবেদন নিয়ে যাচাই বাছাই করে প্রশিক্ষনার্থী নিয়োগের বিধান থাকলেও নামে মাত্র যাচাই বাছাই করে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আবিদা সুলতানা একক সিদ্বান্তে তার ইচ্ছেমত তালিকা তৈরী করে প্রশিক্ষানার্থী চুড়ান্ত করেছেন। এ তালিকার বেশির ভাগই ব্যবসায়ী চাকুরীজীবির স্ত্রী মেয়ে নাতি ছাড়াও সাবলম্বী মহিলারা রয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।
দরিদ্র ও অতি দরিদ্র শেনীর মহিলারা এ তালিকায় নেই বললেই চলে। এবং অনেক দরিদ্র মহিলারা এ প্রশিক্ষনের খবরেই জানে না বলে জানান প্রশিক্ষনে অংশ নিতে ইচ্ছুক সন্ধারই গ্রামের সুলতানা নামে এক নারী গতকাল বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদের সামনে এ প্রতিবেদককে অভিযোগ করে এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
সেদিন প্রকল্পের প্রশিক্ষনার্থীদের কার্যক্রম শুরুর আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন হয় উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মৌসুমী আফরিদার সভাপতিত্বে। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আইনুল হক ভাইসচেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জেলা পরিষদ সদস্য এখলাসুর রহমান লিটনসহ প্রমূখ। তবে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার প্রশিক্ষনার্থী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ তুলে এ অনুষ্ঠান বয়কট করে তার উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জাইকা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি মাহফুজা বেগম পুতুল।
এ বিষয়ে বক্তব্য নিতে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আবিদা সুলতানার সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

রানীশংকৈলে জাইকার প্রকল্পে অনিয়ম

আপডেট টাইম ০২:০৭:২৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ অগাস্ট ২০১৮

রানীশংকৈল(ঠাকুরগাও) প্রতিনিধিঃ- কোন ধরনের প্রচার প্রচারণা ছাড়ায় এবং প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতিকে তোয়াক্কা না করে ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈল উপজেলা মহিলা অধিদপ্তর কর্মকর্তার একক সিদ্বান্তে জাপান বাংলাদেশ কোঅপারেশন এজেন্সী(জাইকা) প্রকল্পের প্রশিক্ষণার্থী নিয়োগের অভিযোগ উঠেছে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আবিদা সুলতানার বিরুদ্বে।
জানা যায়, জাপান বাংলাদেশ কোঅপারেশন এজেন্সী(জাইকা) অর্থায়ানে চল্লিশজন মহিলাকে প্রতিদিন তিনশত টাকা হারে সন্মানী প্রদানের সুযোগ রেখে উপজেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আওতায় অতি দরিদ্র ও দরিদ্র মহিলাদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষে ব্লক বাটিক ও বুটিক প্রশিক্ষনের প্রশিক্ষনার্থী নিয়োগে একটি কমিটির করা হয়। এ কমিটির সভাপতি হিসেবে মনোনীত করা হয় উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহফুজা বেগম পুতুলকে।
নিয়মনুযায়ী প্রচার প্রচারনার মাধ্যমে প্রশিক্ষনে ইচ্ছুক প্রার্থীর নিকট আবেদন নিয়ে যাচাই বাছাই করে প্রশিক্ষনার্থী নিয়োগের বিধান থাকলেও নামে মাত্র যাচাই বাছাই করে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আবিদা সুলতানা একক সিদ্বান্তে তার ইচ্ছেমত তালিকা তৈরী করে প্রশিক্ষানার্থী চুড়ান্ত করেছেন। এ তালিকার বেশির ভাগই ব্যবসায়ী চাকুরীজীবির স্ত্রী মেয়ে নাতি ছাড়াও সাবলম্বী মহিলারা রয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।
দরিদ্র ও অতি দরিদ্র শেনীর মহিলারা এ তালিকায় নেই বললেই চলে। এবং অনেক দরিদ্র মহিলারা এ প্রশিক্ষনের খবরেই জানে না বলে জানান প্রশিক্ষনে অংশ নিতে ইচ্ছুক সন্ধারই গ্রামের সুলতানা নামে এক নারী গতকাল বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদের সামনে এ প্রতিবেদককে অভিযোগ করে এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।
সেদিন প্রকল্পের প্রশিক্ষনার্থীদের কার্যক্রম শুরুর আনুষ্ঠানিক উদ্ধোধন হয় উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা মৌসুমী আফরিদার সভাপতিত্বে। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আইনুল হক ভাইসচেয়ারম্যান মিজানুর রহমান জেলা পরিষদ সদস্য এখলাসুর রহমান লিটনসহ প্রমূখ। তবে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার প্রশিক্ষনার্থী নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ তুলে এ অনুষ্ঠান বয়কট করে তার উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ে অবস্থান করছিলেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও জাইকা প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি মাহফুজা বেগম পুতুল।
এ বিষয়ে বক্তব্য নিতে মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা আবিদা সুলতানার সাথে যোগাযোগ করা হলে তাকে পাওয়া যায় নি।