ঢাকা ০৭:২৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
ঠাকুরগাঁয়ে বিজিবি’র উদ্দোগে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা সাংবাদিক বিপ্লবের উপর হামলা মামলার আসামীরা গ্রেপ্তার হচ্ছেনা পীরগঞ্জে শহীদ জমিদার পরিবারের পক্ষে কুরানখানী ও মিলাদমাহফিল চাঞ্চল্যকর আকরাম হত্যা মামলা তদন্তে পুলিশের বানিজ্য-মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টা পীরগঞ্জে নিয়োগ বাণিজ্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন হিমালয় সংলগ্ন জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে নেই আবহাওয়া অফিস ঠাকুরগাঁওয়ে প্রাইমারীর ভাইভা পরীক্ষা দিতে গিয়ে ২ চাকরীপ্রার্থী আটক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা দিতে এসে ধরা খেলেন চাকরিপ্রার্থী।  ৪৬৮ এমপি এখনো বহাল সংসদ-সদস্যের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক জীবনে আপনি সত্যিকারের সুখী কি না যেভাবে বুঝবেন

ভন্ড কবিরাজের কান্ড- জ্বীনের ভয় দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা

আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক::ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার উত্তরে কাতিহার হাটের পূর্ব পার্শ্বে ভন্ড কবিরাজ আবু তালেব জ্বীনের ভয় দেখিয়ে ৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
দীর্ঘ দিন ধরে এই কবিরাজ মানুষের সাথে প্রতারণা করে অঢেল সম্পত্তির মালিক হয়েছেন।। সম্প্রতি পীরগঞ্জ উপজেলার রঘুনাথপুর -মুন্সিপাড়া মহল্লার সাবেক পৌর মেয়র রাজিউর রহমান রাজু এর ভাই আবুল কালাম আজাদ ওরফে আবুল হোসেন এর পুত্র আল আমীন দীর্ঘদিন ধরে নানা জটিল রোগে ভুগছিল। কবিরাজ আবু তালেব এর কাছে চিকিৎসার জন্য তাকে নিয়ে গেলে ভন্ড কবিরাজ আবু তালেব জ্বীনের আধ্যাত্বিক শক্তির বলে আল আমীন কে রোগ বালাই থেকে চিরতরে মুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দেন। কয়েক দফা চিকিৎসা দেওয়ার পর কবিরাজ আবু তালেব আল আমীনের পিতা আবুল কালাম আজাদ ওরফে আবুল হোসেনের কাছ থেকে জ্বীনের ভয় দেখিয়ে প্রায় ৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। কবিরাজ আবুল হোসেনকে বলেন টাকা না দিলে আমার নিয়ন্ত্রণে থাকা ভয়ঙ্কর জ্বীন আপনার সন্তান আল আমীনকে মেরে ফেলবে মর্মে ভয় ভীতি দেখান। জ্বীনের ভয়ে আবুল হোসেন নিরুপায় হয়ে একমাত্র ছেলের জীবন বাঁচানোর তাগিদে ভন্ড কবিরাজ আবু তালেবকে মোট ৮ লক্ষ টাকা প্রদান করেন। টাকা প্রদানের সময় আবুল হোসেন, তার স্ত্রী, তার পুত্র আল আমীন ও পীরগঞ্জের একাধিক ব্যক্তি প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ভন্ড কবিরাজের চিকিৎসা নিয়ে আল আমীন শারীরিক ভাবে কোন সুস্থ্য হয়নি বলে পরিবার দাবী করেন। ওই কবিরাজ আবুল হোসেনের পাশাপাশি বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে চিকিৎসার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা করেছেন বলে একাধিক বিশ্বস্থ সূত্রে জানা গেছে। প্রতি শনিবার ওই কবিরাজ তার নিজ বাস ভবনে রোগী দেখেন ও প্রতারণা করেন। তিনি কখনও ইউনানী চিকিৎসক এবং কখনও কখনও জ্বীনের আধ্যাত্বিক ক্ষমতা বলে নিজেকে মহা চিকিৎসক দাবী করেন। ভন্ড কবিরাজ আবু তালেব, আবুল কালাম আজাদের টাকা আত্মসাৎ করার জন্যে সম্প্রতি ঠাকুরগাঁওয়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে দন্ড বিধি আইনের ১০৭ ধারায় মোকদ্দমা দায়ের করেন। কবিরাজের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে এলাকার সুশীল সমাজ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

ঠাকুরগাঁয়ে বিজিবি’র উদ্দোগে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা

ভন্ড কবিরাজের কান্ড- জ্বীনের ভয় দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা

আপডেট টাইম ০৪:০৫:৩৮ অপরাহ্ন, শনিবার, ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক::ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার উত্তরে কাতিহার হাটের পূর্ব পার্শ্বে ভন্ড কবিরাজ আবু তালেব জ্বীনের ভয় দেখিয়ে ৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
দীর্ঘ দিন ধরে এই কবিরাজ মানুষের সাথে প্রতারণা করে অঢেল সম্পত্তির মালিক হয়েছেন।। সম্প্রতি পীরগঞ্জ উপজেলার রঘুনাথপুর -মুন্সিপাড়া মহল্লার সাবেক পৌর মেয়র রাজিউর রহমান রাজু এর ভাই আবুল কালাম আজাদ ওরফে আবুল হোসেন এর পুত্র আল আমীন দীর্ঘদিন ধরে নানা জটিল রোগে ভুগছিল। কবিরাজ আবু তালেব এর কাছে চিকিৎসার জন্য তাকে নিয়ে গেলে ভন্ড কবিরাজ আবু তালেব জ্বীনের আধ্যাত্বিক শক্তির বলে আল আমীন কে রোগ বালাই থেকে চিরতরে মুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দেন। কয়েক দফা চিকিৎসা দেওয়ার পর কবিরাজ আবু তালেব আল আমীনের পিতা আবুল কালাম আজাদ ওরফে আবুল হোসেনের কাছ থেকে জ্বীনের ভয় দেখিয়ে প্রায় ৮ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। কবিরাজ আবুল হোসেনকে বলেন টাকা না দিলে আমার নিয়ন্ত্রণে থাকা ভয়ঙ্কর জ্বীন আপনার সন্তান আল আমীনকে মেরে ফেলবে মর্মে ভয় ভীতি দেখান। জ্বীনের ভয়ে আবুল হোসেন নিরুপায় হয়ে একমাত্র ছেলের জীবন বাঁচানোর তাগিদে ভন্ড কবিরাজ আবু তালেবকে মোট ৮ লক্ষ টাকা প্রদান করেন। টাকা প্রদানের সময় আবুল হোসেন, তার স্ত্রী, তার পুত্র আল আমীন ও পীরগঞ্জের একাধিক ব্যক্তি প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ভন্ড কবিরাজের চিকিৎসা নিয়ে আল আমীন শারীরিক ভাবে কোন সুস্থ্য হয়নি বলে পরিবার দাবী করেন। ওই কবিরাজ আবুল হোসেনের পাশাপাশি বিভিন্ন লোকের কাছ থেকে চিকিৎসার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা করেছেন বলে একাধিক বিশ্বস্থ সূত্রে জানা গেছে। প্রতি শনিবার ওই কবিরাজ তার নিজ বাস ভবনে রোগী দেখেন ও প্রতারণা করেন। তিনি কখনও ইউনানী চিকিৎসক এবং কখনও কখনও জ্বীনের আধ্যাত্বিক ক্ষমতা বলে নিজেকে মহা চিকিৎসক দাবী করেন। ভন্ড কবিরাজ আবু তালেব, আবুল কালাম আজাদের টাকা আত্মসাৎ করার জন্যে সম্প্রতি ঠাকুরগাঁওয়ের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে দন্ড বিধি আইনের ১০৭ ধারায় মোকদ্দমা দায়ের করেন। কবিরাজের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে এলাকার সুশীল সমাজ সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।