ঢাকা ১২:৩৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
শিক্ষার্থীরা বিপাকে, পীরগঞ্জে শতাধিক মাধ্যমিক স্কুলে শিক্ষকরা পাঠদানে হিমসিম খাচ্ছে পীরগঞ্জে ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস পালিত ঠাকুরগাঁয়ে বিজিবি’র উদ্দোগে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা সাংবাদিক বিপ্লবের উপর হামলা মামলার আসামীরা গ্রেপ্তার হচ্ছেনা পীরগঞ্জে শহীদ জমিদার পরিবারের পক্ষে কুরানখানী ও মিলাদমাহফিল চাঞ্চল্যকর আকরাম হত্যা মামলা তদন্তে পুলিশের বানিজ্য-মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টা পীরগঞ্জে নিয়োগ বাণিজ্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন হিমালয় সংলগ্ন জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে নেই আবহাওয়া অফিস ঠাকুরগাঁওয়ে প্রাইমারীর ভাইভা পরীক্ষা দিতে গিয়ে ২ চাকরীপ্রার্থী আটক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা দিতে এসে ধরা খেলেন চাকরিপ্রার্থী। 

অসৎউদ্দেশ্যে খাজনা বাতিল ও ৪ লক্ষ টাকা ঘুষের দাবী- ঠাকুরগাঁও সদর ইউএনও সহ ৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদক আইনে মামলার তদন্ত শুরু

আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক:: অসৎ উদ্দেশ্যে খাজনা বাতিল ও ৪ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করায় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ইউএনও আব্দুল্লাহ আল মামুন সহ দিনাজপুর সদর ভূমি অফিসের কানুনগো ও তহশিলদারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইনে গৃহিত মামলার তদন্ত শুরু হয়েছে।
জানা যায়, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন দিনাজপুর সদর উপজেলায় এসি ল্যান্ড থাকা কালে দিনাজপুর শহরের চৌরঙ্গি সিনেমা হলের মালিকানা নিয়ে নিজেদের মধ্যকার বিবাদের সুযোগ কাজে লাগিয়ে অসৎউদ্দেশ্যে আর্থিকভাবে লাভবান হবার মানষে আইনী সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে অবৈধভাবে খাজনা বাতিল করেন এবং তর্কিত সম্পত্তির খাজনা গ্রহনের জন্য জনৈক শাহনেওয়াজ রাজু’র কাছে ৪ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করেন। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ ভুমি মালিক ঘাষিপাড়ার বাসিন্দা শাহনেওয়াজ রাজু পিতা মৃত ওসমান আলী কোতয়ালী, দিনাজপুর বাদি হয়ে তৎকালীন এসিল্যান্ড আব্দুল্লাহ আল মামুন (বর্তমানে ইউএনও ঠাকরগাঁও সদর), ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা বাবুল হোসেন ও কানুনগো ছায়ফুল আলমের বিরুদ্ধে দিনাজপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলা করেন। আদালত শুনানী শেষে মামলাটি গ্রহন পূর্বক বিচারের জন্য সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে প্রেরন করেন। যার স্পেশাল মামলা নং -০২/২০১৮। সিনিয়র স্পেশাল জজ মামলার নথি দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালযে প্রেরন করলে দুদক অনুসন্ধান ও তদন্ত-১ শাখার ১০.০৪.১৮ ইং তারিখের ১২৫৬২ নং স্বারকে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়-দিনাজপুরেরর সহকারী পরিচালক আহসানুল কবীর পলাশ কে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ দিলে তিনি ২৯.০৮.১৮ইং ১০৫৬ স্বারকে আসামীদের ১০ সেপ্টেম্বর/১৮ ইং দুদক জেলা কার্যালয়ে হাজির হয়ে স্ব-স্ব বক্তব্য প্রদানের নির্দেশ দেন। সে মোতাবেক আসামীরা হাজির হয়ে তাদের লিখিত বক্তব্য প্রদান করেন। তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, তদন্ত কাজ শুরু হয়েছে স্বাক্ষী প্রমান সাপেক্ষ্যে খুব শিগগীর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

শিক্ষার্থীরা বিপাকে, পীরগঞ্জে শতাধিক মাধ্যমিক স্কুলে শিক্ষকরা পাঠদানে হিমসিম খাচ্ছে

অসৎউদ্দেশ্যে খাজনা বাতিল ও ৪ লক্ষ টাকা ঘুষের দাবী- ঠাকুরগাঁও সদর ইউএনও সহ ৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদক আইনে মামলার তদন্ত শুরু

আপডেট টাইম ০২:৪১:২৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক:: অসৎ উদ্দেশ্যে খাজনা বাতিল ও ৪ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করায় ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার ইউএনও আব্দুল্লাহ আল মামুন সহ দিনাজপুর সদর ভূমি অফিসের কানুনগো ও তহশিলদারের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন আইনে গৃহিত মামলার তদন্ত শুরু হয়েছে।
জানা যায়, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মামুন দিনাজপুর সদর উপজেলায় এসি ল্যান্ড থাকা কালে দিনাজপুর শহরের চৌরঙ্গি সিনেমা হলের মালিকানা নিয়ে নিজেদের মধ্যকার বিবাদের সুযোগ কাজে লাগিয়ে অসৎউদ্দেশ্যে আর্থিকভাবে লাভবান হবার মানষে আইনী সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে অবৈধভাবে খাজনা বাতিল করেন এবং তর্কিত সম্পত্তির খাজনা গ্রহনের জন্য জনৈক শাহনেওয়াজ রাজু’র কাছে ৪ লক্ষ টাকা ঘুষ দাবী করেন। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ ভুমি মালিক ঘাষিপাড়ার বাসিন্দা শাহনেওয়াজ রাজু পিতা মৃত ওসমান আলী কোতয়ালী, দিনাজপুর বাদি হয়ে তৎকালীন এসিল্যান্ড আব্দুল্লাহ আল মামুন (বর্তমানে ইউএনও ঠাকরগাঁও সদর), ইউনিয়ন ভুমি সহকারী কর্মকর্তা বাবুল হোসেন ও কানুনগো ছায়ফুল আলমের বিরুদ্ধে দিনাজপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলা করেন। আদালত শুনানী শেষে মামলাটি গ্রহন পূর্বক বিচারের জন্য সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতে প্রেরন করেন। যার স্পেশাল মামলা নং -০২/২০১৮। সিনিয়র স্পেশাল জজ মামলার নথি দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালযে প্রেরন করলে দুদক অনুসন্ধান ও তদন্ত-১ শাখার ১০.০৪.১৮ ইং তারিখের ১২৫৬২ নং স্বারকে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয়-দিনাজপুরেরর সহকারী পরিচালক আহসানুল কবীর পলাশ কে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা নিয়োগ দিলে তিনি ২৯.০৮.১৮ইং ১০৫৬ স্বারকে আসামীদের ১০ সেপ্টেম্বর/১৮ ইং দুদক জেলা কার্যালয়ে হাজির হয়ে স্ব-স্ব বক্তব্য প্রদানের নির্দেশ দেন। সে মোতাবেক আসামীরা হাজির হয়ে তাদের লিখিত বক্তব্য প্রদান করেন। তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, তদন্ত কাজ শুরু হয়েছে স্বাক্ষী প্রমান সাপেক্ষ্যে খুব শিগগীর আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করা হবে।