Print Print

প্রার্থী প্রত্যাহার করতে ২০দলের অনুরোধ জামায়াতকে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট::আগামী ৩০ জুলাই আসন্ন সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জামায়াতের প্রার্থী প্রত্যাহার করতে অনুরোধ জানিয়েছে বিএনপির নেতৃত্বধীন ২০ দলীয় জোট। শনিবার বিকেলে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জোটের বৈঠকে শরীক দলগুলোর নেতারা জামায়াতকে এই অনুরোধ করেছেন। বৈঠকের পর সংবাদ সম্মেলনে ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, সিলেটে জামায়াতের প্রার্থী এখনও আছে। আজকের বৈঠকে সব শরীকরা অনুরোধ করেছেন, তাদের প্রার্থীতা প্রত্যাহার করতে। তিনি বলেন, নিশ্চয় রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াতের সেই সিদ্ধান্ত নেয়ার অধিকার আছে। বৈঠকে তাদের একজন প্রতিনিধি ছিলেন। তিনি দলের হাইকমান্ডকে আমাদের অনুরোধের বিষয়টি অবহিত করবেন। আশা করি ২০ দলীয় জোটের ঐক্যের বিষয়টি তাদের কাছে গুরুত্ব পাবে।

গত ১২ জুলাই কুমিল্লার চান্দিনা রেদোয়ান আহমেদ কলেজ রোডে এলডিপির চেয়ারম্যান কর্নেল (অব) অলি আহমেদের গাড়ি বহরে হামলার নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, সেখানে পুলিশ ছিল তারা সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে। দুর্বৃত্তরা যে ভাবে গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে । তার গাড়ির উপর এমন হামলায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন ২০দলীয় জোটের শরীরক নেতারা । যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত তাদের মধ্যে ভিডিও ফুটেজ দেখে ১১জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে । এই ফুটেজ দেখে ২০দলীয় জোট দাবি করে অবিলম্বে তাদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসা হক। পুলিশের যে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে সে বিষয়ে তদন্ত করা উচিত ।

এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ২০ দলের মধ্যে কোন বিভেদ নেই। সব নির্বাচনে যে কোন রাজনৈতিক দল অংশগ্রহণ করবে সেই স্বাধীনতা আছে। জামায়াতকে আমরা অনুরাধ করেছি। সিলেটের ব্যাপারে তারা ২০ দলীয় জোটের অনুরোধ রাখবেন। সংবাদ সম্মেলনে শেষ জামায়াতের কর্ম পরিষদের সদস্য মোবারক হোসাইন বলেন, ২০ দলীয় শরীকরা জামায়াতের প্রার্থী প্রত্যাহারের অনুরোধ করেছেন, আমি দলের নীতি-নির্ধারকদের কাছে এই বার্তা পৌঁছে দেব। নজরুল ইসলাম খান জানান, জোটের বৈঠকে জাতীয় পার্টির মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার এর স্ত্রী অধ্যাপিকা জওসন আরা বেগমের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া, বৈঠকে কল্যাণ পার্টি ছাড়া সব দলের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান, জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় পরিষদ সদস্য মোবারক হোসাইন, বিজেপি চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, এলডিপি মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমেদ, এনডিপি চেয়ারম্যান খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজা, এনপিপি চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, জাগপা সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান, বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া। আরও উপস্থিত ছিলেন, খেলাফত মজলিশ মহাসচিব ড. আহমেদ আবদুল কাদের, ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব অধ্যাপক আবদুল করিম, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুদ্দিন আহমেদ মনি, লেবার পার্টি (একাংশ) চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, (অপরাংশ) মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী, বিএমএল মহাসচিব শেখ জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাঈদ আহমেদ, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মহিউদ্দিন ইকরাম প্রমুখ।

ADs by sundarban PVC sundarban PVC Ads

ADs by Korotoa PVC Korotoa PVC Ads
ADs by Bank Asia Bank 

Asia Ads

নিচে মন্তব্য করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *