ঢাকা ০৬:২৯ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
ঠাকুরগাঁয়ে বিজিবি’র উদ্দোগে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা সাংবাদিক বিপ্লবের উপর হামলা মামলার আসামীরা গ্রেপ্তার হচ্ছেনা পীরগঞ্জে শহীদ জমিদার পরিবারের পক্ষে কুরানখানী ও মিলাদমাহফিল চাঞ্চল্যকর আকরাম হত্যা মামলা তদন্তে পুলিশের বানিজ্য-মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টা পীরগঞ্জে নিয়োগ বাণিজ্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন হিমালয় সংলগ্ন জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে নেই আবহাওয়া অফিস ঠাকুরগাঁওয়ে প্রাইমারীর ভাইভা পরীক্ষা দিতে গিয়ে ২ চাকরীপ্রার্থী আটক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা দিতে এসে ধরা খেলেন চাকরিপ্রার্থী।  ৪৬৮ এমপি এখনো বহাল সংসদ-সদস্যের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক জীবনে আপনি সত্যিকারের সুখী কি না যেভাবে বুঝবেন

নিখোজের ৪৫ দিন পর খানসামায় নিজের বাড়ীতে ফিরল ওবায়দুল

আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক::দিনাজপুরের খানসামা থেকে চিরিরবন্দরে মেয়ের বাড়ীতে বেড়াতে গিয়ে রাস্তা ভুলে পীরগঞ্জে চলে আসা বৃদ্ধ ওবায়দুল ইসলাম নিখোজের ৪৫ দিন পর স্থানীয় সংবাদ কর্মীদের সহযোগীতায় নিজের বাড়ীতে ফিরে গেছেন।
এই নিখোজ ব্যাক্তিটিকে খুজে পেয়ে তার পরিবারের লোকজন আজ আবেগে আপ্লুত, আত্নহারা। বিভিন্ন স্থানে দিনের পর দিন খুজেও পাওয়া যাচ্ছিলনা এই ব্যাক্তিকে। পাগলের মত পড়ে থাকা ওবায়দুল হঠাৎ করেই গত ২৮ ফেব্রুয়ারী তার নিজের বাড়ীতে ফিরতে চেয়ে ঠিকানা বলতে সক্ষম হলে পীরগঞ্জের সাংবাদিক আজিজুল হক বলা ঠিকানা যাচাইয়ের জন্য খানসামা প্রেসক্লাবের সভাপতি মোজাফ্ফর হোসেনের দ্বারস্থ হলে তিনি সেই ঠিকানায় খবর নিয়ে নিখোজ ব্যাক্তিটির পরিবার পরিজনের কাছে বিষয়টি অবগত করেন। সে মোতাবেক পরিবারের লোকজন ১ মার্চ স্থানীয় গন্যমান্র ব্যাক্তিদের নিয়ে পীরগঞ্জে যান এবং ওবায়দুলকে নিয়ে বাড়ী ফেরেন।
জানা যায় গত ১৬ জানুয়ারী/১৮ ইং খানসামা উপজেলার বোয়ালদীঘি’র দুবুলিয়া পাড়ার বাসিন্দা ওবায়দুল ইসলাম(৬৫)কে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর মেয়ের বাড়ী থেকে নিজের বাড়ীতে ফেরার জন্য মেয়ে জামাই ঠাকুগাঁওগামী একটি যাত্রীবাহি বাসে উঠিয়ে দেন। এরপর থেকেই তিনি নিখোজ হন। মূলত তার বাস থেকে দিনাজপুরের বীরগঞ্জে নেমে খানসামার দিকে যাত্রা করার কথা থাকলেও তিনি মনের ভুলে পীরগঞ্জে বাসে উঠে পীরগঞ্জ চলে আসেন। অস্বাভাবাবিকভাবে তিনি পথ ভূল করে আর ফিরে যেতে না পেরে শহরের মুন্সিপাড়াস্থ নজরুল মেম্বারের বাড়ীর বারান্দায় গিয়ে আশ্রয় নেন। সেখানেই তিনি খেয়ে না খেয়ে পড়ে থাকতে শুরু করেন্ পাশ্ববর্তী লোকজন পাগল ভেবে তাকে মাঝে মধ্যে খাবার দিতে থাকে। এক কাপড়ে থাকতে থাকতে তার শরীরে দুর্গন্ধ হতে থাকে এবঙ তিনি অপ্রকৃতিস্থ হয়ে পড়েন। হঠাৎ করে গত ২৮ ফেব্রুয়ারী এই ব্যাক্তি তার নাম ঠিকানা বলেন এবং নিজ বাড়ীতে ফেরার অভিব্যাক্তি প্রকাশ করেন। বিয়য়টি জানানো হয় প্রতিবেশি সাংবাদিক আজিজুল হককে। আজিজুল হক যোগাযোগ করেন খানসামা প্রেসক্লাবের সভাপতির সাথে। তাদের মাধ্যমে যোগাযোগের ভিত্তিতে নিখোজ ওবায়দুল ১ মার্চ ফিরে যান তার নিজ বাড়ীতে। নিখোজের পর তার পুত্র আনিসুর রহমান খানসামা থানায় সাধারন ডাইরী করেন। যার নং ৮৬৩ তারিখ ১৬.১.১৮ইং। নিখোজ পিতাকে খুজে পেয়ে পুত্র আনিসুর সহ পরিবারেরর সদস্যরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

ঠাকুরগাঁয়ে বিজিবি’র উদ্দোগে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা

নিখোজের ৪৫ দিন পর খানসামায় নিজের বাড়ীতে ফিরল ওবায়দুল

আপডেট টাইম ০৮:৪৪:৫৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ মার্চ ২০১৮

আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক::দিনাজপুরের খানসামা থেকে চিরিরবন্দরে মেয়ের বাড়ীতে বেড়াতে গিয়ে রাস্তা ভুলে পীরগঞ্জে চলে আসা বৃদ্ধ ওবায়দুল ইসলাম নিখোজের ৪৫ দিন পর স্থানীয় সংবাদ কর্মীদের সহযোগীতায় নিজের বাড়ীতে ফিরে গেছেন।
এই নিখোজ ব্যাক্তিটিকে খুজে পেয়ে তার পরিবারের লোকজন আজ আবেগে আপ্লুত, আত্নহারা। বিভিন্ন স্থানে দিনের পর দিন খুজেও পাওয়া যাচ্ছিলনা এই ব্যাক্তিকে। পাগলের মত পড়ে থাকা ওবায়দুল হঠাৎ করেই গত ২৮ ফেব্রুয়ারী তার নিজের বাড়ীতে ফিরতে চেয়ে ঠিকানা বলতে সক্ষম হলে পীরগঞ্জের সাংবাদিক আজিজুল হক বলা ঠিকানা যাচাইয়ের জন্য খানসামা প্রেসক্লাবের সভাপতি মোজাফ্ফর হোসেনের দ্বারস্থ হলে তিনি সেই ঠিকানায় খবর নিয়ে নিখোজ ব্যাক্তিটির পরিবার পরিজনের কাছে বিষয়টি অবগত করেন। সে মোতাবেক পরিবারের লোকজন ১ মার্চ স্থানীয় গন্যমান্র ব্যাক্তিদের নিয়ে পীরগঞ্জে যান এবং ওবায়দুলকে নিয়ে বাড়ী ফেরেন।
জানা যায় গত ১৬ জানুয়ারী/১৮ ইং খানসামা উপজেলার বোয়ালদীঘি’র দুবুলিয়া পাড়ার বাসিন্দা ওবায়দুল ইসলাম(৬৫)কে দিনাজপুরের চিরিরবন্দর মেয়ের বাড়ী থেকে নিজের বাড়ীতে ফেরার জন্য মেয়ে জামাই ঠাকুগাঁওগামী একটি যাত্রীবাহি বাসে উঠিয়ে দেন। এরপর থেকেই তিনি নিখোজ হন। মূলত তার বাস থেকে দিনাজপুরের বীরগঞ্জে নেমে খানসামার দিকে যাত্রা করার কথা থাকলেও তিনি মনের ভুলে পীরগঞ্জে বাসে উঠে পীরগঞ্জ চলে আসেন। অস্বাভাবাবিকভাবে তিনি পথ ভূল করে আর ফিরে যেতে না পেরে শহরের মুন্সিপাড়াস্থ নজরুল মেম্বারের বাড়ীর বারান্দায় গিয়ে আশ্রয় নেন। সেখানেই তিনি খেয়ে না খেয়ে পড়ে থাকতে শুরু করেন্ পাশ্ববর্তী লোকজন পাগল ভেবে তাকে মাঝে মধ্যে খাবার দিতে থাকে। এক কাপড়ে থাকতে থাকতে তার শরীরে দুর্গন্ধ হতে থাকে এবঙ তিনি অপ্রকৃতিস্থ হয়ে পড়েন। হঠাৎ করে গত ২৮ ফেব্রুয়ারী এই ব্যাক্তি তার নাম ঠিকানা বলেন এবং নিজ বাড়ীতে ফেরার অভিব্যাক্তি প্রকাশ করেন। বিয়য়টি জানানো হয় প্রতিবেশি সাংবাদিক আজিজুল হককে। আজিজুল হক যোগাযোগ করেন খানসামা প্রেসক্লাবের সভাপতির সাথে। তাদের মাধ্যমে যোগাযোগের ভিত্তিতে নিখোজ ওবায়দুল ১ মার্চ ফিরে যান তার নিজ বাড়ীতে। নিখোজের পর তার পুত্র আনিসুর রহমান খানসামা থানায় সাধারন ডাইরী করেন। যার নং ৮৬৩ তারিখ ১৬.১.১৮ইং। নিখোজ পিতাকে খুজে পেয়ে পুত্র আনিসুর সহ পরিবারেরর সদস্যরা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন।