ঢাকা ০৬:২০ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সাবেক এমপি শহীদুল্লাহ শহীদ এর জীবনাবসান পীরগঞ্জে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় কিশোরের মৃত্যু জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সহ ৫ নেতার পীরগঞ্জে সংবর্ধনা ১৫০ পিস টার্পেন্টাডল সহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার প্রতিবন্ধী ভাতাভোগীদের অর্থ আত্মসাৎকারী চক্রের গ্রেফতার বিষয়ে ঠাকুরগাঁওয়ে সংবাদ সম্মেলন ঠাকুরগাঁওয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় কমিউনিটি পুলিশিং সভা পীরগঞ্জে পেট্রোল পাম্পে ‘নো হেলমেট নো ফুয়েল’ ক্যাম্পিং পীরগঞ্জে স্কুল ছাত্রীকে উত্যক্ত করার দায়ে ইভটিজারের ১৫ দিনের জেল পীরগঞ্জে ভূমিসেবা সপ্তাহ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও আলোচনা সভা রক্ষক যখন ভক্ষকের ভূমিকায় ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রলোভনে সম্পর্কের পর অস্বীকার, এলাকায় তোলপাড়

আমরা নির্বাচনে যাব এবং শেষ মুহুত্ব পযন্ত দেখব —মির্জা ফখরুল

সারাদিন ডেস্ক::
নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই আমাদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
তিনি বলেন, বিএনপির তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ধানের শীষে ভোট দিয়ে সরকার পতন করে দেশমাতা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার শপথ নিয়েছি আমরা।

মঙ্গলবার বিকেলে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা চিলারং ইউনিয়নের ভেলাজান উচ্চ বিদ্যালয়ে এক জনসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমি আমার লোকজনকে বলেছি, কোনো উসকানিতে পা দেবেন না। আমরা নির্বাচনে যাব এবং শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত দেখব। সরকার ইতোমধ্যে বিএনপির গণজোয়ারে হতাশ হয়ে পড়েছে। তাই দলীয় ও প্রশাসনকে ব্যবহার করে নির্বাচন বানচালের পরিকল্পনা করছে আওয়াম
তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ এখন জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন। জনগণ আওয়ামী লীগের ওপর থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। সে কারণে তারা এখন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বেছে নিয়েছে। একদিকে প্রশাসনকে ব্যবহার করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হাজার হাজার বিএনপির নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করছে, অপরদিকে তারাই হামলা, ভাঙচুর চালাচ্ছে।

ফখরুল বলেন, নির্বাচন কমিশনের যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির কথা ছিল তা কোনোভাবে তৈরি হয়নি। নির্বাচন কমিশন যদি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চায় তাহলে এসব সন্ত্রাসী হামলা বন্ধ করতে হবে।

এর আগে দুপুরে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বেগুনবাড়ি ইউনিয়নের দানারহাট এলাকায় মির্জা ফখরুলের গাড়িবহরে হামলা হয়।

হামলার ঘটনা নিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এখানে আসামাত্রই আমাদের গাড়িবহরে হামলা হয়েছে। আমাদের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন ঘটনার অনেক পর ঘটনাস্থলে এসেছে। তাদের উচিত ছিল ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে আসা। স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ যারা এখানে উসকানি দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাই। এ সময় তার সঙ্গে স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মী ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

ঠাকুরগাঁও-৩ আসনের সাবেক এমপি শহীদুল্লাহ শহীদ এর জীবনাবসান

আমরা নির্বাচনে যাব এবং শেষ মুহুত্ব পযন্ত দেখব —মির্জা ফখরুল

আপডেট টাইম ১০:০২:২০ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

সারাদিন ডেস্ক::
নির্বাচন থেকে দূরে রাখতেই আমাদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
তিনি বলেন, বিএনপির তৃণমূল নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ধানের শীষে ভোট দিয়ে সরকার পতন করে দেশমাতা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার শপথ নিয়েছি আমরা।

মঙ্গলবার বিকেলে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলা চিলারং ইউনিয়নের ভেলাজান উচ্চ বিদ্যালয়ে এক জনসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমি আমার লোকজনকে বলেছি, কোনো উসকানিতে পা দেবেন না। আমরা নির্বাচনে যাব এবং শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত দেখব। সরকার ইতোমধ্যে বিএনপির গণজোয়ারে হতাশ হয়ে পড়েছে। তাই দলীয় ও প্রশাসনকে ব্যবহার করে নির্বাচন বানচালের পরিকল্পনা করছে আওয়াম
তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ এখন জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন। জনগণ আওয়ামী লীগের ওপর থেকে আস্থা হারিয়ে ফেলেছে। সে কারণে তারা এখন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বেছে নিয়েছে। একদিকে প্রশাসনকে ব্যবহার করে মিথ্যা মামলা দিয়ে হাজার হাজার বিএনপির নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করছে, অপরদিকে তারাই হামলা, ভাঙচুর চালাচ্ছে।

ফখরুল বলেন, নির্বাচন কমিশনের যে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরির কথা ছিল তা কোনোভাবে তৈরি হয়নি। নির্বাচন কমিশন যদি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে চায় তাহলে এসব সন্ত্রাসী হামলা বন্ধ করতে হবে।

এর আগে দুপুরে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার বেগুনবাড়ি ইউনিয়নের দানারহাট এলাকায় মির্জা ফখরুলের গাড়িবহরে হামলা হয়।

হামলার ঘটনা নিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এখানে আসামাত্রই আমাদের গাড়িবহরে হামলা হয়েছে। আমাদের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। পুলিশ প্রশাসন ঘটনার অনেক পর ঘটনাস্থলে এসেছে। তাদের উচিত ছিল ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে আসা। স্থানীয় রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ যারা এখানে উসকানি দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানাই। এ সময় তার সঙ্গে স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মী ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।