ঢাকা ১০:০৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পীরগঞ্জে এক ইউ’পি সদস্যা’র অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে ইউএনও’র নিকট ৩টি অভিযোগ

এএইচ লিটন পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও):: পীরগঞ্জ উপজেলার এক ইউ’পি সদস্যা’র ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে ইউএনও’র বরাবরে ৩টি অভিযোগ দিয়েছে অসহায় ভুক্তভোগীগণ। ইউ’পি সদস্যা এলাকার অসহায় সহজ সরল খেটে খাওয়া মানুষদেরকে সরকারি ভাবে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া ও বিধবা ভাতা দেওয়ার নাম করে উৎকোচ হাতিয়ে নিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। এ নিয়ে ভুক্তভোগীগণ পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে পৃথক ভাবে ৩ জন লিখিত অভিযোগ করেছেন।
জানা যায়, উপজেলার ১০নং জাবরহাট ইউনিয়নস্থ ১, ২, ৩ নং ওয়ার্ডের ইউ’পি সদস্যা শ্রী রাজ বালা রানী রায় তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর পরই তার এলাকার বিভিন্ন লোকজনকে উপকার করার নামে উৎকোচ হাতিয়ে নিয়ে হয়রানি করে আসছেন। এতে মাটিয়ানী ডাঙ্গীপাড়ার চা দোকানী মালতি রানী রায় ঘর নির্মাণের জন্য ১৫ হাজার টাকা দিলে দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও তার ঘর নির্মাণের কোন আলামত পান নাই। তিনি ২০/০৩/২০১৮ইং তারিখে পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে ঐ ইউ’পি সদস্যার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন। বোলদিয়ারা জালিয়াপাড়ার মৎস্যজীবি বিরেন জালীকে সরকারি ভাবে ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার নামে ২৮শত টাকা হাতিয়ে নিয়ে একইরুপে কাজ করেন ঐ ইউ’পি সদস্যা। তিনি ০১/০৪/২০১৮ইং তারিখে ঘুষ নেওয়া ও হয়রানি করার দায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। বোলদিয়ারা আগাপাড়ার শ্রমজীবি আকলিমা খাতুন বেওয়া বিধবা ভাতা’র নামে অপ-কৌশলে ২ হাজার টাকা ঐ ইউ’পি সদস্যা হাতিয়ে নেয়। তিনি গত ০১/০৪/২০১৮ইং তারিখে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়- ত্রাণ শাখা স্মারক নং- ৫১.০১.৯৪৮২.০০০.৯৬.০১১.১৭- তাং- ০৫/০১/২০১৮ইং মোতাবেক গত ০৮/০৪/২০১৮ইং তারিখে আনিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে যার জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পের নামে উৎকোচ হাতিয়ে নেওয়ায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত স্মারক নং- ৫১.০১.৯৪৮২.০০০.৯৬.০১১.১৭-৭৯/১(৯) মোতাবেক ১০নং ইউ’পি জাবরহাট ইউনিয়ন পরিষদে স্ব-শরীরে শুনানির জন্য তদন্ত দেন। তদন্তের শুনানি উক্ত ইউ’পি পরিষদে না হয়ে ঐ দিনই উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে শুনানি হলে অভিযোগকারীর অভিযোগের সত্যতা পান। সত্যতার প্রতিবেদন ও ব্যবস্থা সময়ের ব্যাপার বলে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এ প্রতিবেদক কে জানিয়েছেন। এছাড়া আরো দুই জনকে ঘর নির্মাণ ও বিধবা ভাতা পাইয়ে দেওয়ার নামে উৎকোচ নেওয়ায় অভিযোগের ভিত্তিতে ইহার শুনানি পরবর্তী সময়ে উপজেলা মহিলা-শিশু বিষয়ক ও সমাজ সেবা অধিদপ্তর কর্তৃক দিন ধার্য করে শুনানি করবেন। এ বিষয়ে অনিয়ম দুর্নীতি কারী ইউ’পি সদস্যা রাজ বালা রানী রায় এর সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, কি ব্যবস্থা নেয় কর্তৃপক্ষ আমি জানি না। প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও অভিযোগের তদন্তকারী তারিফুল ইসলাম জানায় দুর্নীতির সত্যতা পাওয়া গেছে পরবর্তী কি হয় দেখা যাক। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এডবিøউ এম রায়হান শাহ্ জানায় ঐ ইউ’পি সদস্যার বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত চলছে, সত্য প্রতিবেদন পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

পীরগঞ্জে এক ইউ’পি সদস্যা’র অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে ইউএনও’র নিকট ৩টি অভিযোগ

আপডেট টাইম ০৫:৫৯:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১১ এপ্রিল ২০১৮

এএইচ লিটন পীরগঞ্জ (ঠাকুরগাঁও):: পীরগঞ্জ উপজেলার এক ইউ’পি সদস্যা’র ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে ইউএনও’র বরাবরে ৩টি অভিযোগ দিয়েছে অসহায় ভুক্তভোগীগণ। ইউ’পি সদস্যা এলাকার অসহায় সহজ সরল খেটে খাওয়া মানুষদেরকে সরকারি ভাবে ঘর নির্মাণ করে দেওয়া ও বিধবা ভাতা দেওয়ার নাম করে উৎকোচ হাতিয়ে নিয়ে আত্মসাৎ করেছেন। এ নিয়ে ভুক্তভোগীগণ পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে পৃথক ভাবে ৩ জন লিখিত অভিযোগ করেছেন।
জানা যায়, উপজেলার ১০নং জাবরহাট ইউনিয়নস্থ ১, ২, ৩ নং ওয়ার্ডের ইউ’পি সদস্যা শ্রী রাজ বালা রানী রায় তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর পরই তার এলাকার বিভিন্ন লোকজনকে উপকার করার নামে উৎকোচ হাতিয়ে নিয়ে হয়রানি করে আসছেন। এতে মাটিয়ানী ডাঙ্গীপাড়ার চা দোকানী মালতি রানী রায় ঘর নির্মাণের জন্য ১৫ হাজার টাকা দিলে দীর্ঘদিন পেরিয়ে গেলেও তার ঘর নির্মাণের কোন আলামত পান নাই। তিনি ২০/০৩/২০১৮ইং তারিখে পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে ঐ ইউ’পি সদস্যার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করেন। বোলদিয়ারা জালিয়াপাড়ার মৎস্যজীবি বিরেন জালীকে সরকারি ভাবে ঘর নির্মাণ করে দেওয়ার নামে ২৮শত টাকা হাতিয়ে নিয়ে একইরুপে কাজ করেন ঐ ইউ’পি সদস্যা। তিনি ০১/০৪/২০১৮ইং তারিখে ঘুষ নেওয়া ও হয়রানি করার দায়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। বোলদিয়ারা আগাপাড়ার শ্রমজীবি আকলিমা খাতুন বেওয়া বিধবা ভাতা’র নামে অপ-কৌশলে ২ হাজার টাকা ঐ ইউ’পি সদস্যা হাতিয়ে নেয়। তিনি গত ০১/০৪/২০১৮ইং তারিখে উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেন। পীরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়- ত্রাণ শাখা স্মারক নং- ৫১.০১.৯৪৮২.০০০.৯৬.০১১.১৭- তাং- ০৫/০১/২০১৮ইং মোতাবেক গত ০৮/০৪/২০১৮ইং তারিখে আনিত অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে যার জমি আছে ঘর নাই প্রকল্পের নামে উৎকোচ হাতিয়ে নেওয়ায় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা স্বাক্ষরিত স্মারক নং- ৫১.০১.৯৪৮২.০০০.৯৬.০১১.১৭-৭৯/১(৯) মোতাবেক ১০নং ইউ’পি জাবরহাট ইউনিয়ন পরিষদে স্ব-শরীরে শুনানির জন্য তদন্ত দেন। তদন্তের শুনানি উক্ত ইউ’পি পরিষদে না হয়ে ঐ দিনই উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ে শুনানি হলে অভিযোগকারীর অভিযোগের সত্যতা পান। সত্যতার প্রতিবেদন ও ব্যবস্থা সময়ের ব্যাপার বলে প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা এ প্রতিবেদক কে জানিয়েছেন। এছাড়া আরো দুই জনকে ঘর নির্মাণ ও বিধবা ভাতা পাইয়ে দেওয়ার নামে উৎকোচ নেওয়ায় অভিযোগের ভিত্তিতে ইহার শুনানি পরবর্তী সময়ে উপজেলা মহিলা-শিশু বিষয়ক ও সমাজ সেবা অধিদপ্তর কর্তৃক দিন ধার্য করে শুনানি করবেন। এ বিষয়ে অনিয়ম দুর্নীতি কারী ইউ’পি সদস্যা রাজ বালা রানী রায় এর সঙ্গে কথা বললে তিনি জানান, কি ব্যবস্থা নেয় কর্তৃপক্ষ আমি জানি না। প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ও অভিযোগের তদন্তকারী তারিফুল ইসলাম জানায় দুর্নীতির সত্যতা পাওয়া গেছে পরবর্তী কি হয় দেখা যাক। উপজেলা নির্বাহী অফিসার এডবিøউ এম রায়হান শাহ্ জানায় ঐ ইউ’পি সদস্যার বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত চলছে, সত্য প্রতিবেদন পেলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।