ঢাকা ১১:২৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
আগামীতে আইসিটি সেক্টরে ১০ লক্ষ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হবে ………….ঠাকুরগাঁওয়ে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পীরগঞ্জে বিদায় সংবর্ধনা ও দায়িত্বভার গ্রহণ শেখ সমশের আলী রোগীদের প্রতি অবহেলা কোনভাবেই সহ্য করা হবেনা- পীরগঞ্জে ২০ শয্যাবিশিষ্ট ডায়াবেটিস এন্ড জেনারেল হাসপাতালের উদ্বোধনী বক্তৃতায় স্বাস্থ্য মন্ত্রী পীরগঞ্জে ২শ’ পিস টার্পেন্টাডল সহ মাদক ব্যবসায়ী আটক পীরগঞ্জে ফেন্সিডিল ও ইনজেকশন উদ্ধার : গ্রেফতার— ২ পীরগঞ্জে টার্পেন্টাডল ট্যাবলেট সহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক ডাচ বাংলা ব্যাংকের প্রতিনিধিকে মারপিট করে ৯ লক্ষ টাকা ছিনতাই বাংলাদেশে বিনিয়োগের এখন উপযুক্ত সময়: চীনা ব্যবসায়ীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী ঠাকুরগাঁওয়ে পুকুরের পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু খালেদা জিয়ার জীবন হুমকির মুখে: মির্জা ফখরুল

ঠাকুরগাঁওয়ে হানিফ এন্টারপ্রাইজের ড্রাইভারকে গণধোলাই করলো জনতা

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও হানিফ এন্টারপ্রাইজের ড্রাইভারকে গণধোলাই সাধারণ জনতাসহ শ্রমিক নেতারা। বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় ঠাকুরগাঁও জেলা শহরের নরেশ চৌহান সড়কের হানিফ কাউন্টারে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, পঞ্চগড় জেলার এমপি এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজনের সহর্ধমিনীসহ কয়েকজন মঙ্গলবার রাতে ঢাকা থেকে হানিফ এন্টাপ্রাইজের ১৪৫৭৬৭ নম্বরের এসি গাড়িতে ঠাকুরগাঁওয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। এসময় পথে প্রাকৃতিক চাপ সৃস্টি হলে বিষয়টি গাড়ির সুপারভাইজা কে জানালে সুপারভাইজার ড্রাইভার হুমায়ুনকে নির্দিষ্টস্থানে ধামাতে বলে। এতে ড্রাইভার মহিলাদের উল্লেখ্য করে খারাপ ভাষায় কথা বলে গালিগালাজ করেন। পরে এমপির পরিচয় দিলে ড্রাইভার আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। তারপরও ড্রাইভার কারো কথা গুরুত্ব না দিয়ে তার মতো করে গাড়ি চালিয়ে যান। পরে এমপির স্ত্রীসহ সবাই ঠাকুরগাঁওয়ে পৌছান। অতঃপর ঘটনাটি বাসায় স্বজনদের জানালে ঠাকুরগাঁও স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও এমপির ভাগিনা এ্যাপোলো হানিফ কাউন্টারের ম্যানেজার নারায়ন চন্দ্রকে বিচার দেন। এসময় উত্তেজিত লোকজন হানিফ কাউন্টারে বেশকিছুক্ষন তালা ঝুলিয়ে দেয়। পরে উপায় না পেয়ে কয়েকঘন্টার পর ড্রাইভারকে কাউন্টারে নিয়ে আসেন কাউন্টার কর্তৃপক্ষ। এসময় কাউন্টারের প্রবেশ পথেই উত্তেজিত জনতা ড্রাইভারকে গণধোলাই দেয়। এসময় শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা তাকে জনতার হাত থেকে তাকে রক্ষা করে কাউন্টারের ভিতরে নিয়ে আবারো শ্রমিক নেতারা তাকে মারপিট করে ঘটনার জন্য ম্যানেজার নারায়ন চন্দ্রসহ ড্রাইভারকে ক্ষমা চাওয়ান এবং বিষয়টি তাৎক্ষনিক মিমাংসা হয়। এসময় উত্তেজিত জনতা বিভিন্ন সময়ে কাউন্টার ম্যানেজার নারায়ণ চন্দ্রের খারাপ আচরণের কথা উল্লেখ্য করে তাকেও গালিগালাজ করেন। সাধারন যাত্রীরা অবিলম্বে হানিফ পরিবহনে এমন ড্রাইভারসহ কাউন্টার ম্যানেজারের অপসারণ দাবি করেন।
এ বিষয়ে হানিফ কাউন্টারের ম্যানেজার নারয়ন চন্দ্র তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, আমরা বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি। এটা নিয়ে আর বাড়াবেন না বলে অনুরোধ করেন।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

আগামীতে আইসিটি সেক্টরে ১০ লক্ষ কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা হবে ………….ঠাকুরগাঁওয়ে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

ঠাকুরগাঁওয়ে হানিফ এন্টারপ্রাইজের ড্রাইভারকে গণধোলাই করলো জনতা

আপডেট টাইম ১১:২৬:৫০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ নভেম্বর ২০১৮

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ ঠাকুরগাঁও হানিফ এন্টারপ্রাইজের ড্রাইভারকে গণধোলাই সাধারণ জনতাসহ শ্রমিক নেতারা। বুধবার রাত সাড়ে ৯টায় ঠাকুরগাঁও জেলা শহরের নরেশ চৌহান সড়কের হানিফ কাউন্টারে এ ঘটনা ঘটে।
জানা যায়, পঞ্চগড় জেলার এমপি এ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজনের সহর্ধমিনীসহ কয়েকজন মঙ্গলবার রাতে ঢাকা থেকে হানিফ এন্টাপ্রাইজের ১৪৫৭৬৭ নম্বরের এসি গাড়িতে ঠাকুরগাঁওয়ের উদ্দেশ্যে রওনা হয়। এসময় পথে প্রাকৃতিক চাপ সৃস্টি হলে বিষয়টি গাড়ির সুপারভাইজা কে জানালে সুপারভাইজার ড্রাইভার হুমায়ুনকে নির্দিষ্টস্থানে ধামাতে বলে। এতে ড্রাইভার মহিলাদের উল্লেখ্য করে খারাপ ভাষায় কথা বলে গালিগালাজ করেন। পরে এমপির পরিচয় দিলে ড্রাইভার আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন। তারপরও ড্রাইভার কারো কথা গুরুত্ব না দিয়ে তার মতো করে গাড়ি চালিয়ে যান। পরে এমপির স্ত্রীসহ সবাই ঠাকুরগাঁওয়ে পৌছান। অতঃপর ঘটনাটি বাসায় স্বজনদের জানালে ঠাকুরগাঁও স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও এমপির ভাগিনা এ্যাপোলো হানিফ কাউন্টারের ম্যানেজার নারায়ন চন্দ্রকে বিচার দেন। এসময় উত্তেজিত লোকজন হানিফ কাউন্টারে বেশকিছুক্ষন তালা ঝুলিয়ে দেয়। পরে উপায় না পেয়ে কয়েকঘন্টার পর ড্রাইভারকে কাউন্টারে নিয়ে আসেন কাউন্টার কর্তৃপক্ষ। এসময় কাউন্টারের প্রবেশ পথেই উত্তেজিত জনতা ড্রাইভারকে গণধোলাই দেয়। এসময় শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা তাকে জনতার হাত থেকে তাকে রক্ষা করে কাউন্টারের ভিতরে নিয়ে আবারো শ্রমিক নেতারা তাকে মারপিট করে ঘটনার জন্য ম্যানেজার নারায়ন চন্দ্রসহ ড্রাইভারকে ক্ষমা চাওয়ান এবং বিষয়টি তাৎক্ষনিক মিমাংসা হয়। এসময় উত্তেজিত জনতা বিভিন্ন সময়ে কাউন্টার ম্যানেজার নারায়ণ চন্দ্রের খারাপ আচরণের কথা উল্লেখ্য করে তাকেও গালিগালাজ করেন। সাধারন যাত্রীরা অবিলম্বে হানিফ পরিবহনে এমন ড্রাইভারসহ কাউন্টার ম্যানেজারের অপসারণ দাবি করেন।
এ বিষয়ে হানিফ কাউন্টারের ম্যানেজার নারয়ন চন্দ্র তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, আমরা বিষয়টি সমাধান করে দিয়েছি। এটা নিয়ে আর বাড়াবেন না বলে অনুরোধ করেন।