ঢাকা ০২:৫২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঠাকুরগাঁওয়ে জেলা বাস্তুহারা লীগের সভাপতি কে মারপিট

আজম রেহমান,ঠাকুরগাঁও::ঠাকুরগাঁওয়ে বাস্তুহারা লীগের সভাপতি ও সম্পাদককে মারপিট করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন। বাস্তুহারা লীগ এজন্য স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীদের দায়ী করেছে। তবে স্বেচ্ছাসেবক দল এ ঘটনাকে সাজানো নাটক বলে দাবি করেছে। সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম মর্তুজা বলেন, সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে জেলা শহরের নিশ্চিন্তপুর এলাকায় তাদের ওপর এ হামলা হয়। হামলায় আহতরা হলেন জেলা বাস্তুহারা লীগের সভাপতি এসএম দুলাল সরকার (৪০) ও সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান (৬০)। তারা ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। হাসপাতালের চিকিৎসক মোর্শেদ মঞ্জুর জয় বলেন, “দুলাল সরকারের অবস্থা আশঙ্কাজনক।’ তিনি মাথায় প্রচন্ড আঘাত পেয়েছেন। আমরা তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছি। আর হাবিবুর রহমানও আহত হয়েছেন। তবে তিনি আশঙ্কামুক্ত।” জেলা বাস্তুহারা লীগের সহ-সভাপতি আহত হাবিবুর রহমান বলেন, দুলাল তার বাড়ি থেকে শহরের ৭ নম্বর ওয়ার্ড নিশ্চিন্তপুর এলাকার নৌকার নির্বাচনী অফিসে আসছিলেন। পথে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা দুলাল সরকারকে আটক করে লাঠিসোটা দিয়ে বেধড়ক মারধর করেন। বাধা দিতে গেলে আমাকেও তারা মারধর করেন। আমরা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে আওয়ামী লীগের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরছি এবং নৌকার পক্ষে ভোট চাচ্ছি। এতে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা অপরাধীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।” তবে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নূরুজ্জামান নূরু বলছেন, “স্বেচ্ছাসেবক দলের কোনো নেতাকর্মী এ হামলা করেনি। এটি একটি সাজানো নাটক। আওয়ামী লীগ বিভিন্ন কায়দায় আমাদের হয়রানি করছে।”এ বিষয়ে পুলিশ পরিদর্শক গোলাম মর্তুজা বলেন, খবর পাওয়ার পর হাসপাতালে গিয়ে আহতদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। মামলার পর পুলিশ ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা গ্রহন করবে।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

ঠাকুরগাঁওয়ে জেলা বাস্তুহারা লীগের সভাপতি কে মারপিট

আপডেট টাইম ০৮:০৪:২৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮

আজম রেহমান,ঠাকুরগাঁও::ঠাকুরগাঁওয়ে বাস্তুহারা লীগের সভাপতি ও সম্পাদককে মারপিট করা হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন। বাস্তুহারা লীগ এজন্য স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীদের দায়ী করেছে। তবে স্বেচ্ছাসেবক দল এ ঘটনাকে সাজানো নাটক বলে দাবি করেছে। সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম মর্তুজা বলেন, সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে জেলা শহরের নিশ্চিন্তপুর এলাকায় তাদের ওপর এ হামলা হয়। হামলায় আহতরা হলেন জেলা বাস্তুহারা লীগের সভাপতি এসএম দুলাল সরকার (৪০) ও সহ-সভাপতি হাবিবুর রহমান (৬০)। তারা ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। হাসপাতালের চিকিৎসক মোর্শেদ মঞ্জুর জয় বলেন, “দুলাল সরকারের অবস্থা আশঙ্কাজনক।’ তিনি মাথায় প্রচন্ড আঘাত পেয়েছেন। আমরা তাকে নিবিড় পর্যবেক্ষণে রেখেছি। আর হাবিবুর রহমানও আহত হয়েছেন। তবে তিনি আশঙ্কামুক্ত।” জেলা বাস্তুহারা লীগের সহ-সভাপতি আহত হাবিবুর রহমান বলেন, দুলাল তার বাড়ি থেকে শহরের ৭ নম্বর ওয়ার্ড নিশ্চিন্তপুর এলাকার নৌকার নির্বাচনী অফিসে আসছিলেন। পথে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা দুলাল সরকারকে আটক করে লাঠিসোটা দিয়ে বেধড়ক মারধর করেন। বাধা দিতে গেলে আমাকেও তারা মারধর করেন। আমরা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে আওয়ামী লীগের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরছি এবং নৌকার পক্ষে ভোট চাচ্ছি। এতে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকর্মীরা ক্ষিপ্ত হয়ে এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। আমরা অপরাধীদের দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানাচ্ছি।” তবে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি নূরুজ্জামান নূরু বলছেন, “স্বেচ্ছাসেবক দলের কোনো নেতাকর্মী এ হামলা করেনি। এটি একটি সাজানো নাটক। আওয়ামী লীগ বিভিন্ন কায়দায় আমাদের হয়রানি করছে।”এ বিষয়ে পুলিশ পরিদর্শক গোলাম মর্তুজা বলেন, খবর পাওয়ার পর হাসপাতালে গিয়ে আহতদের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। মামলার পর পুলিশ ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষ ব্যবস্থা গ্রহন করবে।