ঢাকা ১২:৫২ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোটকেন্দ্রে অনিয়ম হলে সবাই একসঙ্গে প্রতিবাদ করবেন: সালমা ইসলাম

সারাদিন ডেস্ক:: ভোটারদের নির্ভয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা-১ আসনে লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি। তিনি বলেন, বিশ্বের প্রভাবশালী রাষ্ট্রগুলো চেয়ে আছে আমাদের নির্বাচনের দিকে। তাই ৭ জানুয়ানির নির্বাচন হবে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে। আপনারা সবাই ভোট দিতে কেন্দ্রে যাবেন। কোনো অনিয়ম হলে সবাই একসঙ্গে প্রতিবাদ করবেন এবং ভোট কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাকে অবহিত করবেন।

সালমা ইসলাম ভোটারদের অভয় দিয়ে বলেন, ভয়ের কোনো কারণ নেই। আপনার ভোট আপনিই দেবেন। কারণ প্রধানমন্ত্রী বারবার সুষ্ঠু নির্বাচনের তাগিদ দিচ্ছেন। আমার মা বোনোরা ও ভাইয়েরা সবাই উৎসাহ নিয়ে ভোট কেন্দ্রে যাবেন।

নবাবগঞ্জের বক্সনগর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির উদ্যোগে বর্ধনপাড়া দলীয় কার্যালয়ে শুক্রবার এক নির্বাচনি সভায় এসব কথা বলেন সালমা ইসলাম।

তিনি তরুণ প্রজন্মের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, দল ও মার্কা নয়; এলাকার উন্নয়নের  স্বার্থে আমি এসেছি তোমাদের কাছে। তোমরাই আগামী দিনে এই দেশকে গড়ে তুলবে। আমি চাই তোমাদের সেই কাঙিক্ষত স্বপ্ন ও উন্নয়নের অংশীদার হতে।  তোমাদের চলার পথকে আধুনিক ও উন্নত করে গড়ে তোলতে আমি এসেছি কাজ করতে। আমি নির্বাচিত যে সব এলাকায় স্কুল, মাদরাসা ও কলেজ নেই, সরকারিভাবে সেই এলাকাগুলোতে  স্কুল ও কলেজ নির্মাণের চেষ্টা করব যদি তোমরা আমার পাশে থাকো। এই এলাকার একটি শিশুও যাতে শিক্ষার বাইরে না থাকে সেই বিষয়ে বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তাই সব বাধা অতিক্রম করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। কাজ করতে হবে দোহার নবাবগঞ্জের উন্নযনের স্বার্থে।

স্বাস্থ্যসেবা তৃণমূলের দোড়গোড়ায় পৌছে দেওয়ার অঙ্গীকার করে জাতীয় পার্টির এই প্রার্থী বলেন, আমাদের দেশের গ্রামগুলোর চিকিৎসাব্যবস্থা শহরের মতো উন্নত নয়। বিশ্বের অধিকাংশ উন্নয়নশীল দেশই এই সংকটে আক্রান্ত। তাই আমি আপনাদের ভোটে বিজয়ী হলে গ্রামের হতদরিদ্র্য নিম্ন আয়ের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে গ্রাম-শহরের মধ্যে স্বাস্থ্যসেবার দূরত্ব ঘোচাতে কাজ করব।

এ সময় সালমা ইসলাম স্বামী বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের স্মৃতিচারণ করেন ও আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। বলেন, আমার স্বামী নুরুল ইসলামের চিন্তা চেতনাকে বাস্তবায়ন করতে ও তার স্বপ্ন পূরণে বারবার আপনাদের কাছে ছুটে আসি।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে অতীতের তুলনায় পর্যাপ্ত চিকিৎসক ও অন্যান্য জনবল আছে, ওষুধ-যন্ত্রপাতিও আছে। কিন্তু সঠিক সময়ে সঠিক সেবা সঠিক জায়গায় সঠিক উপায়ে পাওয়ার আয়োজনটি শুধু নেই। বৈষম্যে ভরা এই চিকিৎসা কাঠমোর পরিবর্তন প্রয়োজন। যার দায় আমরা কেউই এড়াতে পারি না। তাই গ্রামের মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে আমি এমপি নির্বাচিত হলে সরকারিভাবে একাধিক হাসপাতাল স্থাপনের পাশপাশি দেশী বিদেশী এনজিও ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে উৎসাহ দেওয়া হবে এই অঞ্চলের মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করতে।

সালমা ইসলাম বলেন, আমরা সবাই জানি গ্রামের অর্থনীতি শহরের বেঁচে থাকার খোরাক জোগায়। তাই গ্রামের কৃষক শ্রমিক বেঁচে থাকলে শহরের মানুষ বেঁচে থাকবে। প্রিয় ভাই ও বোনেরা আসুন গ্রাম ও শহরের দূরত্ব ঘুচাতে একসঙ্গে কাজ করি। ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ছোঁয়ায় আলোকিত দোহার নবাবগঞ্জ গড়ি।

এ দিন তিনি উপজেলার বিভিন্ন প্রত্যন্ত এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে নারী পুরুষের সঙ্গে মতবিনিময় করেন ও  লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চান।

এসময় নবাবগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টি, মহিলা পার্টি, যুব সংহতি, কৃষক পার্টি, ছাত্র সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ে নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

ভোটকেন্দ্রে অনিয়ম হলে সবাই একসঙ্গে প্রতিবাদ করবেন: সালমা ইসলাম

আপডেট টাইম ০৬:৪৫:৩৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০২৩

সারাদিন ডেস্ক:: ভোটারদের নির্ভয়ে কেন্দ্রে যাওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা-১ আসনে লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম এমপি। তিনি বলেন, বিশ্বের প্রভাবশালী রাষ্ট্রগুলো চেয়ে আছে আমাদের নির্বাচনের দিকে। তাই ৭ জানুয়ানির নির্বাচন হবে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে। আপনারা সবাই ভোট দিতে কেন্দ্রে যাবেন। কোনো অনিয়ম হলে সবাই একসঙ্গে প্রতিবাদ করবেন এবং ভোট কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাকে অবহিত করবেন।

সালমা ইসলাম ভোটারদের অভয় দিয়ে বলেন, ভয়ের কোনো কারণ নেই। আপনার ভোট আপনিই দেবেন। কারণ প্রধানমন্ত্রী বারবার সুষ্ঠু নির্বাচনের তাগিদ দিচ্ছেন। আমার মা বোনোরা ও ভাইয়েরা সবাই উৎসাহ নিয়ে ভোট কেন্দ্রে যাবেন।

নবাবগঞ্জের বক্সনগর ইউনিয়ন জাতীয় পার্টির উদ্যোগে বর্ধনপাড়া দলীয় কার্যালয়ে শুক্রবার এক নির্বাচনি সভায় এসব কথা বলেন সালমা ইসলাম।

তিনি তরুণ প্রজন্মের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, দল ও মার্কা নয়; এলাকার উন্নয়নের  স্বার্থে আমি এসেছি তোমাদের কাছে। তোমরাই আগামী দিনে এই দেশকে গড়ে তুলবে। আমি চাই তোমাদের সেই কাঙিক্ষত স্বপ্ন ও উন্নয়নের অংশীদার হতে।  তোমাদের চলার পথকে আধুনিক ও উন্নত করে গড়ে তোলতে আমি এসেছি কাজ করতে। আমি নির্বাচিত যে সব এলাকায় স্কুল, মাদরাসা ও কলেজ নেই, সরকারিভাবে সেই এলাকাগুলোতে  স্কুল ও কলেজ নির্মাণের চেষ্টা করব যদি তোমরা আমার পাশে থাকো। এই এলাকার একটি শিশুও যাতে শিক্ষার বাইরে না থাকে সেই বিষয়ে বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়া হবে। তাই সব বাধা অতিক্রম করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। কাজ করতে হবে দোহার নবাবগঞ্জের উন্নযনের স্বার্থে।

স্বাস্থ্যসেবা তৃণমূলের দোড়গোড়ায় পৌছে দেওয়ার অঙ্গীকার করে জাতীয় পার্টির এই প্রার্থী বলেন, আমাদের দেশের গ্রামগুলোর চিকিৎসাব্যবস্থা শহরের মতো উন্নত নয়। বিশ্বের অধিকাংশ উন্নয়নশীল দেশই এই সংকটে আক্রান্ত। তাই আমি আপনাদের ভোটে বিজয়ী হলে গ্রামের হতদরিদ্র্য নিম্ন আয়ের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে গ্রাম-শহরের মধ্যে স্বাস্থ্যসেবার দূরত্ব ঘোচাতে কাজ করব।

এ সময় সালমা ইসলাম স্বামী বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলামের স্মৃতিচারণ করেন ও আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন। বলেন, আমার স্বামী নুরুল ইসলামের চিন্তা চেতনাকে বাস্তবায়ন করতে ও তার স্বপ্ন পূরণে বারবার আপনাদের কাছে ছুটে আসি।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে অতীতের তুলনায় পর্যাপ্ত চিকিৎসক ও অন্যান্য জনবল আছে, ওষুধ-যন্ত্রপাতিও আছে। কিন্তু সঠিক সময়ে সঠিক সেবা সঠিক জায়গায় সঠিক উপায়ে পাওয়ার আয়োজনটি শুধু নেই। বৈষম্যে ভরা এই চিকিৎসা কাঠমোর পরিবর্তন প্রয়োজন। যার দায় আমরা কেউই এড়াতে পারি না। তাই গ্রামের মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করতে আমি এমপি নির্বাচিত হলে সরকারিভাবে একাধিক হাসপাতাল স্থাপনের পাশপাশি দেশী বিদেশী এনজিও ও বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনকে উৎসাহ দেওয়া হবে এই অঞ্চলের মানুষের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করতে।

সালমা ইসলাম বলেন, আমরা সবাই জানি গ্রামের অর্থনীতি শহরের বেঁচে থাকার খোরাক জোগায়। তাই গ্রামের কৃষক শ্রমিক বেঁচে থাকলে শহরের মানুষ বেঁচে থাকবে। প্রিয় ভাই ও বোনেরা আসুন গ্রাম ও শহরের দূরত্ব ঘুচাতে একসঙ্গে কাজ করি। ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লাঙ্গল প্রতীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের ছোঁয়ায় আলোকিত দোহার নবাবগঞ্জ গড়ি।

এ দিন তিনি উপজেলার বিভিন্ন প্রত্যন্ত এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে নারী পুরুষের সঙ্গে মতবিনিময় করেন ও  লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চান।

এসময় নবাবগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টি, মহিলা পার্টি, যুব সংহতি, কৃষক পার্টি, ছাত্র সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ে নেতারা উপস্থিত ছিলেন।