ঢাকা ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকা পানগাঁও কাস্টমসে ঘোষণা বহির্ভুত পণ্য চালান জব্দ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট : পানগাঁও কাস্টমস হাউসে ১ কোটি ১৯ লাখ টাকার ঘোষণা বহির্ভুত পণ্য চালান জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা। সোমবার (৯ জুলাই) দুপুরে নতুন সময়.কমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো.সহিদুল ইসলাম। তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দা পানগাঁও কাস্টমস হাউসে একটি পণ্যচালানের খালাস স্থগিত করে। পরবর্তীতে শুল্ক গোয়েন্দা কর্তৃক আমদানিকারকের মনোনীত সি এন্ড এফ ও কাস্টমস হাউসের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে পণ্য চালান দুইটির শতভাগ কায়িক পরীক্ষা করে। কায়িক পরীক্ষা শেষে ঘোষণা বহির্ভুত অতিরিক্ত পণ্য পাওয়া যায় যাতে সরকারের প্রায় অর্ধ কোটি টাকার ও বেশি রাজস্ব সুরক্ষিত হয়েছে। সহিদুল ইসলাম আরও জানান, আমদানিকারকের নাম রোয়াশান এন্টারপ্রাইজ। কায়িক পরীক্ষায় পাওয়া গেছে, এসোর্টেড পণ্য প্যাডলক, বিন্দি,প্লাস্টিক ক্লিপ,পায়েল,প্লাস্টিক চুরি,ইমিটেশন জুয়েলারি,পেন কেক ফেচ পাউডার,ক্রীম লাইট পার্টস, স্টিল চেইন ইত্যাদি। এছাড়া কায়িক পরীক্ষায় ঘোষণার বিভিন্ন পণ্যের বিভিন্ন আইটেমের মধ্যে আন্তবদলের কারণে ৭ হাজার ৩২৮.৬ কেজি বেশি পাওয়া গেছে। উল্লেখ্য ইমিটেশন জুয়েলারি তে ঘোষণার তুলনায় ৩ হাজার ৫০ কেজি, পায়েলে ১ হাজার ২শ কেজি ,পেন কেকে ১ হাজার ৮০ কেজি, ক্রিমে ১ হাজার ৪২৫.৬ কেজি এবং প্যাডলকে ১৪০কেজি বেশিসহ সর্বমোট ৭ হাজার ৩২৮.৬ কেজি বেশি পণ্য পাওয়া যায়। তিনি আরও জানান, আমদানিকারকের ঘোষণা অনুযায়ী পণ্যের মূল্য ১৭ লাখ ৭৩ হাজার ৪২৮ টাকা এবং শুল্ক করাদির পরিমাণ ১২ লাখ ০৮ হাজার ৩৮৪.১২ টাকা। কায়িক পরীক্ষা অনুযায়ী পণ্যের মূল্য দাঁড়ায় ৬৪ লাখ ৯৬ হাজার ৬৭৪ টাকা এবং শুল্ক করাদির পরিমান দাঁড়ায় ৫৩ লাখ ২৫ হাজার ৮৭৬.৬১ টাকা। অর্থাৎ শুল্ককরসহ মোট পণ্য মূল্যই দাঁড়ায় প্রায় ১ কোটি ১৯ লাখ টাকা। এ বিষয়ে শুল্ক গোয়েন্দা কর্তৃক মামলা দায়েরের কার্যক্রম চলছে।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

ঢাকা পানগাঁও কাস্টমসে ঘোষণা বহির্ভুত পণ্য চালান জব্দ

আপডেট টাইম ০১:১৪:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৯ জুলাই ২০১৮

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট : পানগাঁও কাস্টমস হাউসে ১ কোটি ১৯ লাখ টাকার ঘোষণা বহির্ভুত পণ্য চালান জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা। সোমবার (৯ জুলাই) দুপুরে নতুন সময়.কমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো.সহিদুল ইসলাম। তিনি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শুল্ক গোয়েন্দা পানগাঁও কাস্টমস হাউসে একটি পণ্যচালানের খালাস স্থগিত করে। পরবর্তীতে শুল্ক গোয়েন্দা কর্তৃক আমদানিকারকের মনোনীত সি এন্ড এফ ও কাস্টমস হাউসের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে পণ্য চালান দুইটির শতভাগ কায়িক পরীক্ষা করে। কায়িক পরীক্ষা শেষে ঘোষণা বহির্ভুত অতিরিক্ত পণ্য পাওয়া যায় যাতে সরকারের প্রায় অর্ধ কোটি টাকার ও বেশি রাজস্ব সুরক্ষিত হয়েছে। সহিদুল ইসলাম আরও জানান, আমদানিকারকের নাম রোয়াশান এন্টারপ্রাইজ। কায়িক পরীক্ষায় পাওয়া গেছে, এসোর্টেড পণ্য প্যাডলক, বিন্দি,প্লাস্টিক ক্লিপ,পায়েল,প্লাস্টিক চুরি,ইমিটেশন জুয়েলারি,পেন কেক ফেচ পাউডার,ক্রীম লাইট পার্টস, স্টিল চেইন ইত্যাদি। এছাড়া কায়িক পরীক্ষায় ঘোষণার বিভিন্ন পণ্যের বিভিন্ন আইটেমের মধ্যে আন্তবদলের কারণে ৭ হাজার ৩২৮.৬ কেজি বেশি পাওয়া গেছে। উল্লেখ্য ইমিটেশন জুয়েলারি তে ঘোষণার তুলনায় ৩ হাজার ৫০ কেজি, পায়েলে ১ হাজার ২শ কেজি ,পেন কেকে ১ হাজার ৮০ কেজি, ক্রিমে ১ হাজার ৪২৫.৬ কেজি এবং প্যাডলকে ১৪০কেজি বেশিসহ সর্বমোট ৭ হাজার ৩২৮.৬ কেজি বেশি পণ্য পাওয়া যায়। তিনি আরও জানান, আমদানিকারকের ঘোষণা অনুযায়ী পণ্যের মূল্য ১৭ লাখ ৭৩ হাজার ৪২৮ টাকা এবং শুল্ক করাদির পরিমাণ ১২ লাখ ০৮ হাজার ৩৮৪.১২ টাকা। কায়িক পরীক্ষা অনুযায়ী পণ্যের মূল্য দাঁড়ায় ৬৪ লাখ ৯৬ হাজার ৬৭৪ টাকা এবং শুল্ক করাদির পরিমান দাঁড়ায় ৫৩ লাখ ২৫ হাজার ৮৭৬.৬১ টাকা। অর্থাৎ শুল্ককরসহ মোট পণ্য মূল্যই দাঁড়ায় প্রায় ১ কোটি ১৯ লাখ টাকা। এ বিষয়ে শুল্ক গোয়েন্দা কর্তৃক মামলা দায়েরের কার্যক্রম চলছে।