ঢাকা ১০:২০ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
ঠাকুরগাঁয়ে বিজিবি’র উদ্দোগে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা সাংবাদিক বিপ্লবের উপর হামলা মামলার আসামীরা গ্রেপ্তার হচ্ছেনা পীরগঞ্জে শহীদ জমিদার পরিবারের পক্ষে কুরানখানী ও মিলাদমাহফিল চাঞ্চল্যকর আকরাম হত্যা মামলা তদন্তে পুলিশের বানিজ্য-মামলা ভিন্নখাতে প্রবাহের চেষ্টা পীরগঞ্জে নিয়োগ বাণিজ্যের প্রতিবাদে মানববন্ধন হিমালয় সংলগ্ন জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে নেই আবহাওয়া অফিস ঠাকুরগাঁওয়ে প্রাইমারীর ভাইভা পরীক্ষা দিতে গিয়ে ২ চাকরীপ্রার্থী আটক সহকারী শিক্ষক নিয়োগের মৌখিক পরীক্ষা দিতে এসে ধরা খেলেন চাকরিপ্রার্থী।  ৪৬৮ এমপি এখনো বহাল সংসদ-সদস্যের সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক জীবনে আপনি সত্যিকারের সুখী কি না যেভাবে বুঝবেন

বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা দিয়েছে আর আমি স্বাধীনতার সুফল ঘরে ঘরে পৌছে দিচ্ছি

  আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক::ঠাকুরগাঁও জেলা স্কুল বড় মাঠের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশে স্বাধীনতা এনে দিয়েছিল আর আমি স্বাধীনতার সুফল দেশের প্রতিটি মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে দিচ্ছি। ঠাকুরগাঁওবাসীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরো বলেন, আমি ক্ষমতায় এসে মানুষের উন্নয়নের চিন্তা করি, নিজেকে দেশের সেবক ভাবি,আমার ওপর ১৬ কোটি মানুষের দায়িত্ব রয়েছে। আমি সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির টানা ৩৬ মিনিটের বক্তৃতায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, যতদূরেই থাকি আমি সব সময় আপনাদের সঙ্গেই ছিলাম এবং সঙ্গেই আছি। আপনাদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আপনাদের ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ার উন্নয়নে স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছি। আরও উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে আজ আমি এখানে এসেছি।
শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সরকার ক্ষমতায় এলেই দেশের উন্নয়ন হয়। আমরা উন্নয়ন করি আর বিএনপি লুটপাট করে। আমরা বিমানবন্দর চালু করি তারা বন্ধ করে। এভাবে একের পর এক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাধাগ্রস্ত করে দেশের উন্নয়ন ধ্বংস করেছে বিএনপি।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের তীব্র সমালোচনা করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের এই নির্বাচনী আসনে এসে জনসভায় তার তীব্র সমালোচনা করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘বিএনপির মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সারাদিন কথা বলেন। দিন-রাত মিথ্যা কথা বলতে বলতে তার গলা ব্যাথা হয়ে যায়। কিন্তু মিথ্যা বলারও একটা সীমা আছে। এত মিথ্যা বললে আল্লাহও নারাজ হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘সে (মির্জা ফখরুল) তো বিমানমন্ত্রী ছিল। কিন্তু বিমানের কী উন্নয়ন করেছিল, বলেন। আমরা ক্ষমতায় এসে দেখলাম বিমান চলে না। সব টাকা-পয়সা লুটপাট করে নেওয়া হয়েছে, বিমানকে ধ্বংস করে রেখে গেছে।’

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর বিমানের উন্নয়নের প্রসঙ্গ টেনে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ক্ষমতায় আসার পর আন্তর্জাতিক মানের আটটি বিমান কিনেছি। আরও দুইটি বিমান আসবে। আজ আমরা অন্তত বিমানকে উন্নত করেছি। বিএনপি ধ্বংস করতে জানে, সৃষ্টি করতে জানে না। তারা মানুষের কাছ থেকে নিতে জানে, দিতে জানে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তারা ক্ষমতায় থাকতে পাঁচ পাঁচ বার বাংলাদেশ দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। কেন হয়েছিল? তারা তো পুরো দেশটাকেই ধ্বংস করে দিয়েছে। খালেদা জিয়া ও তার ছেলেরা অর্থসম্পদ লুটপাট করে পাচার করেছে। আমরা নই,আমেরিকার গোয়েন্দা সংস্থা সেই তথ্য বের করেছে, সিঙ্গাপুরে সেটা ধরা পড়েছে। আমরা সেই টাকা ফেরত পর্যন্ত এনেছি। সেই টাকা এখন জনগণের কাজে লাগাচ্ছি। আর ওরা (বিএনপি) জানে লুটপাট, দুর্নীতি, খুন।’

এর আগে তিনি ৩৩টি উন্নয়ন প্রকল্পের ফলক উন্মোচন ও ৩৩টি উন্নয়ন কাজেরও ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন এবং বলেন, আমরা জনগনের দ্বারগোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌছে দিয়েছি। সাধারন মানুষের জন্য কমিউনিটি ক্লিনিক করেছিলাম, যা বিএনপি ক্ষমতায় এসে বন্ধ করে দিয়েিছিল আবার আমরা সেগুলো নতুন করে উদ্যোগ নিয়ে মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করেছি। ৩.১৮ মিনিটে বক্তৃতা শুরু করে প্রধানমন্ত্রী এলাকার মানুষের কাছে আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট চেয়ে ৩.৫৪ মি. তার ৩৬ মিনিটের বক্তৃতা শেষ করেন।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

ঠাকুরগাঁয়ে বিজিবি’র উদ্দোগে আলোচনা ও মতবিনিময় সভা

বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা দিয়েছে আর আমি স্বাধীনতার সুফল ঘরে ঘরে পৌছে দিচ্ছি

আপডেট টাইম ০৭:৪০:৪৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ মার্চ ২০১৮

  আজম রেহমান,সারাদিন ডেস্ক::ঠাকুরগাঁও জেলা স্কুল বড় মাঠের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান দেশে স্বাধীনতা এনে দিয়েছিল আর আমি স্বাধীনতার সুফল দেশের প্রতিটি মানুষের ঘরে ঘরে পৌছে দিচ্ছি। ঠাকুরগাঁওবাসীকে উদ্দেশ্য করে তিনি আরো বলেন, আমি ক্ষমতায় এসে মানুষের উন্নয়নের চিন্তা করি, নিজেকে দেশের সেবক ভাবি,আমার ওপর ১৬ কোটি মানুষের দায়িত্ব রয়েছে। আমি সেই দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় ঠাকুরগাঁও সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির টানা ৩৬ মিনিটের বক্তৃতায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, যতদূরেই থাকি আমি সব সময় আপনাদের সঙ্গেই ছিলাম এবং সঙ্গেই আছি। আপনাদের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। আপনাদের ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ার উন্নয়নে স্কুল-কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছি। আরও উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে আজ আমি এখানে এসেছি।
শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের সরকার ক্ষমতায় এলেই দেশের উন্নয়ন হয়। আমরা উন্নয়ন করি আর বিএনপি লুটপাট করে। আমরা বিমানবন্দর চালু করি তারা বন্ধ করে। এভাবে একের পর এক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাধাগ্রস্ত করে দেশের উন্নয়ন ধ্বংস করেছে বিএনপি।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের তীব্র সমালোচনা করেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের এই নির্বাচনী আসনে এসে জনসভায় তার তীব্র সমালোচনা করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘বিএনপির মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সারাদিন কথা বলেন। দিন-রাত মিথ্যা কথা বলতে বলতে তার গলা ব্যাথা হয়ে যায়। কিন্তু মিথ্যা বলারও একটা সীমা আছে। এত মিথ্যা বললে আল্লাহও নারাজ হয়।’

তিনি আরো বলেন, ‘সে (মির্জা ফখরুল) তো বিমানমন্ত্রী ছিল। কিন্তু বিমানের কী উন্নয়ন করেছিল, বলেন। আমরা ক্ষমতায় এসে দেখলাম বিমান চলে না। সব টাকা-পয়সা লুটপাট করে নেওয়া হয়েছে, বিমানকে ধ্বংস করে রেখে গেছে।’

আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর বিমানের উন্নয়নের প্রসঙ্গ টেনে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ক্ষমতায় আসার পর আন্তর্জাতিক মানের আটটি বিমান কিনেছি। আরও দুইটি বিমান আসবে। আজ আমরা অন্তত বিমানকে উন্নত করেছি। বিএনপি ধ্বংস করতে জানে, সৃষ্টি করতে জানে না। তারা মানুষের কাছ থেকে নিতে জানে, দিতে জানে না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তারা ক্ষমতায় থাকতে পাঁচ পাঁচ বার বাংলাদেশ দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। কেন হয়েছিল? তারা তো পুরো দেশটাকেই ধ্বংস করে দিয়েছে। খালেদা জিয়া ও তার ছেলেরা অর্থসম্পদ লুটপাট করে পাচার করেছে। আমরা নই,আমেরিকার গোয়েন্দা সংস্থা সেই তথ্য বের করেছে, সিঙ্গাপুরে সেটা ধরা পড়েছে। আমরা সেই টাকা ফেরত পর্যন্ত এনেছি। সেই টাকা এখন জনগণের কাজে লাগাচ্ছি। আর ওরা (বিএনপি) জানে লুটপাট, দুর্নীতি, খুন।’

এর আগে তিনি ৩৩টি উন্নয়ন প্রকল্পের ফলক উন্মোচন ও ৩৩টি উন্নয়ন কাজেরও ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন করেন এবং বলেন, আমরা জনগনের দ্বারগোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌছে দিয়েছি। সাধারন মানুষের জন্য কমিউনিটি ক্লিনিক করেছিলাম, যা বিএনপি ক্ষমতায় এসে বন্ধ করে দিয়েিছিল আবার আমরা সেগুলো নতুন করে উদ্যোগ নিয়ে মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করেছি। ৩.১৮ মিনিটে বক্তৃতা শুরু করে প্রধানমন্ত্রী এলাকার মানুষের কাছে আগামী নির্বাচনে নৌকায় ভোট চেয়ে ৩.৫৪ মি. তার ৩৬ মিনিটের বক্তৃতা শেষ করেন।