ঢাকা ০৬:২৮ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম
গৃহবধুকে ধর্ষনের পর হত্যা, ২ ঘাতক গ্রেপ্তার ঠাকুরগাঁওয়ে দ্বিতীয় ধাপে দু’টি উপজেলায় নতুন প্রার্থী বিজয়ী ঠাকুরগাঁওয়ে দ্বিতীয় ধাপে দু’টি উপজেলায় নতুন প্রার্থী বিজয়ী উপজেলা নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ায় সুকুমার রায়কে বিএনপি থেকে বহিষ্কার ঠাকুরগাঁও নারকোটিকস এর অভিযানে ভারতীয় টার্পেন্টাডল ট্যাবলেটের চালান ঠাকুরগাঁওয়ে নারকোটিকস’র অভিযানে মাদকের বড় চালান আটক পীরগঞ্জে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ উপলক্ষে সভা অনুষ্ঠিত পীরগঞ্জে ৩০ পিস টার্পেন্টাডল সহ ২ মাদক ব্যবসায়ী আটক পীরগঞ্জে ১৫০ গ্রাম শুকনো গাজা সহ ব্যবসায়ী আটক ঠাকুরগাঁওয়ে ঠিকাদারদের নিয়ে এলজিইডি’র দিনব্যাপী কর্মশালা

ঠাকুরগাঁওয়ে কলেজছাত্রীর বিয়ের দাবীতে ৩ ধরে প্রেমিকের বাড়ীতে অনশন

মনসুর আহাম্মেদ,ষ্ঠাফ রিপোর্টার:: ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জগন্নাথপুর খোচাবাড়ি এলাকায় এক কলেজ ছাত্রী বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়ীতে ৩ ধরে অনশন করছে।
অনশনরত ওই শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, সদর উপজেলা জগন্নাথপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর খোঁচাবাড়ি এলাকার ব্যবসায়ি আব্দুল মোতালেবের ছেলে তানভীর আহম্মেদ বাবুর সাথে প্রায় ২ বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে একই ইউনিয়নের ঠাকুরগাঁও সরকারি মহিলা কলেজের এইচএসএসি পরীক্ষার্থীর সাথে। সম্পর্ক চলাকালে প্রেমিক তানভীর আহম্মেদ বাবু বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অবৈধভাবে মেলামেশা শুরু করায় কলেজছাত্রী গর্ভধারন করে। প্রেমিক তানভীর আহম্মেদ বাবুকে বিয়ের জন্য বললে সে বিয়ের আগে প্রেমিকাকে গর্ভের ভ্রুন নষ্টের জন্য শর্ত কেধে দেয়। শর্ত মোতাবেক গত ৩ মাস আগে গর্ভস্থ ভ্রুন নষ্ট করে ওই প্রেমিকা। কিন্তু ভ্রুন নষ্টের পর বিয়ে করতে অসম্মতি জানায় তানভির। অবশেষে ওই প্রেমিকা গত শুক্রবার প্রেমিক তানভীরের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করেন। এলাকাবাসী অনশনের বিষয়টি অবগত হলে স্থানাীয় ইউপি সদস্য কেদার নাথকে অবহিত করেন। পরে ইউপি সদস্য ঘটনাস্থলে এসে প্রভাবশালী ছেলের বাবা মোতালেবকে ম্যানেজ করে অনশনকারী ওই মেয়েকে ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা জানান। কিস্তু অনশনকারী বিয়ের দাবীতে অনঢ় থাাকলে ইউপি সদস্য কেদার নাথ, প্রেমিক তানভীর ও তার পরিবারকে অন্যত্র ভাগিয়ে দেয়। রবিবার সকালে অনশনের বিষয়টি নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় লোকজন পরিষদে বসলে শেষ পর্যন্ত সুরাহা হয়নি। স্থানাীয় ব্যক্তি মেরাজুল জানান, ছেলের পরিবার এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে অর্থ দিয়ে মুখ বন্ধ করে দিয়েছে। তাই তারা বিয়ের বিষয়ে অনীহা প্রকাশ করছে। তাছাড়া মেয়েটির কালকে এইচএসসি পরীক্ষা এই মূহূর্তে একটা দূর্ঘটনা ঘটে গেলে মেয়েটির ভবিষৎ অন্ধকার নেমে আসবে।
অনশনকারী মেয়ের মা জানান, তানভীর নামে ছেলেটি আমার মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। গত ৩ মাস আগে বাচ্চা নষ্ট করলে বিয়ে করবে বলে উপায় না পেয়ে শহরে এসে বাচ্চা নষ্ট করা হয়। কিন্তু তানভীরকে বিয়ের চাপ দিলে সে অস্বীকৃতি জানায়। অবশেষে আমার মেয়ে বিষের বোতল হাতে নিয়ে বিয়ের দাবিতে ছেলের বাড়িতে অবস্থান করছে। স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বার ছেলের বাবার কাছে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে মিমাংসা করার প্রস্তাব দেয় আমাকে। আমার মেয়েকে ওই ছেলে বিয়ে না করলে আত্নহত্যা করবে। কালকে তার এইচএসসি পরীক্ষা সেটা দিতে পারবে না মনে হয়।বিয়ের দাবিতে অনশনকারী ওই মেয়ে জানান, তানভীর আমার জীবন নষ্ট করেছে। আমি তাকেই বিয়ে করবো। তার সাথে বিয়ে না দিলে এই বাড়িতে আত্নহত্যা করবো বলে হুমকী প্রদান করে ওই অনশনকারী।ছেলের বাবা মোতালেবের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমার ছেলে ওই মেয়েকে বিয়ে করবে না। বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যানকে মিমাংসার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ইউপি সদস্য কেদার নাথ বলেন, স্থানীয় ভাবে অনশনের বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা চলছে। সুরাহা না হলে বিয়ের ব্যবস্থা করা হবে। জগন্নাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে বলেন, ছেলে ও তার পরিবার ওই মেয়েকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। মেয়ের পরিবার পরিষদে বা থানায় লিখিত অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, অনশনের বিষয়টি আমরা এখনো অবগত নই। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

গৃহবধুকে ধর্ষনের পর হত্যা, ২ ঘাতক গ্রেপ্তার

ঠাকুরগাঁওয়ে কলেজছাত্রীর বিয়ের দাবীতে ৩ ধরে প্রেমিকের বাড়ীতে অনশন

আপডেট টাইম ০১:১২:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ এপ্রিল ২০১৮

মনসুর আহাম্মেদ,ষ্ঠাফ রিপোর্টার:: ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার জগন্নাথপুর খোচাবাড়ি এলাকায় এক কলেজ ছাত্রী বিয়ের দাবীতে প্রেমিকের বাড়ীতে ৩ ধরে অনশন করছে।
অনশনরত ওই শিক্ষার্থীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, সদর উপজেলা জগন্নাথপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর খোঁচাবাড়ি এলাকার ব্যবসায়ি আব্দুল মোতালেবের ছেলে তানভীর আহম্মেদ বাবুর সাথে প্রায় ২ বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে একই ইউনিয়নের ঠাকুরগাঁও সরকারি মহিলা কলেজের এইচএসএসি পরীক্ষার্থীর সাথে। সম্পর্ক চলাকালে প্রেমিক তানভীর আহম্মেদ বাবু বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে অবৈধভাবে মেলামেশা শুরু করায় কলেজছাত্রী গর্ভধারন করে। প্রেমিক তানভীর আহম্মেদ বাবুকে বিয়ের জন্য বললে সে বিয়ের আগে প্রেমিকাকে গর্ভের ভ্রুন নষ্টের জন্য শর্ত কেধে দেয়। শর্ত মোতাবেক গত ৩ মাস আগে গর্ভস্থ ভ্রুন নষ্ট করে ওই প্রেমিকা। কিন্তু ভ্রুন নষ্টের পর বিয়ে করতে অসম্মতি জানায় তানভির। অবশেষে ওই প্রেমিকা গত শুক্রবার প্রেমিক তানভীরের বাড়িতে বিয়ের দাবিতে অনশন শুরু করেন। এলাকাবাসী অনশনের বিষয়টি অবগত হলে স্থানাীয় ইউপি সদস্য কেদার নাথকে অবহিত করেন। পরে ইউপি সদস্য ঘটনাস্থলে এসে প্রভাবশালী ছেলের বাবা মোতালেবকে ম্যানেজ করে অনশনকারী ওই মেয়েকে ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা জানান। কিস্তু অনশনকারী বিয়ের দাবীতে অনঢ় থাাকলে ইউপি সদস্য কেদার নাথ, প্রেমিক তানভীর ও তার পরিবারকে অন্যত্র ভাগিয়ে দেয়। রবিবার সকালে অনশনের বিষয়টি নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান ও স্থানীয় লোকজন পরিষদে বসলে শেষ পর্যন্ত সুরাহা হয়নি। স্থানাীয় ব্যক্তি মেরাজুল জানান, ছেলের পরিবার এলাকায় প্রভাবশালী হওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে অর্থ দিয়ে মুখ বন্ধ করে দিয়েছে। তাই তারা বিয়ের বিষয়ে অনীহা প্রকাশ করছে। তাছাড়া মেয়েটির কালকে এইচএসসি পরীক্ষা এই মূহূর্তে একটা দূর্ঘটনা ঘটে গেলে মেয়েটির ভবিষৎ অন্ধকার নেমে আসবে।
অনশনকারী মেয়ের মা জানান, তানভীর নামে ছেলেটি আমার মেয়েকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে অবৈধ সম্পর্ক গড়ে তোলে। গত ৩ মাস আগে বাচ্চা নষ্ট করলে বিয়ে করবে বলে উপায় না পেয়ে শহরে এসে বাচ্চা নষ্ট করা হয়। কিন্তু তানভীরকে বিয়ের চাপ দিলে সে অস্বীকৃতি জানায়। অবশেষে আমার মেয়ে বিষের বোতল হাতে নিয়ে বিয়ের দাবিতে ছেলের বাড়িতে অবস্থান করছে। স্থানীয় চেয়ারম্যান, মেম্বার ছেলের বাবার কাছে মোটা অংকের অর্থ নিয়ে মিমাংসা করার প্রস্তাব দেয় আমাকে। আমার মেয়েকে ওই ছেলে বিয়ে না করলে আত্নহত্যা করবে। কালকে তার এইচএসসি পরীক্ষা সেটা দিতে পারবে না মনে হয়।বিয়ের দাবিতে অনশনকারী ওই মেয়ে জানান, তানভীর আমার জীবন নষ্ট করেছে। আমি তাকেই বিয়ে করবো। তার সাথে বিয়ে না দিলে এই বাড়িতে আত্নহত্যা করবো বলে হুমকী প্রদান করে ওই অনশনকারী।ছেলের বাবা মোতালেবের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, আমার ছেলে ওই মেয়েকে বিয়ে করবে না। বিষয়টি ইউপি চেয়ারম্যানকে মিমাংসার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ইউপি সদস্য কেদার নাথ বলেন, স্থানীয় ভাবে অনশনের বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা চলছে। সুরাহা না হলে বিয়ের ব্যবস্থা করা হবে। জগন্নাথপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিনের কাছে জানতে চাইলে বলেন, ছেলে ও তার পরিবার ওই মেয়েকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। মেয়ের পরিবার পরিষদে বা থানায় লিখিত অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।ঠাকুরগাঁও সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, অনশনের বিষয়টি আমরা এখনো অবগত নই। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে তিনি জানান।