ঢাকা ১২:১৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৩১ মে ২০২৩, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ শিকারে নদীতে জেলেরা

নিজস্ব প্রতিবেদক::দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষে ছয়টি অভায়াশ্রমে আজ থেকে শুরু হয়েছে ইলিশ শিকার। ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরার ওপর সরকারি নিষেধাজ্ঞা গতকাল মঙ্গলবার শেষ হয়েছে। এরপর রাত থেকেই নদীতে ইলিশ শিকারে নদীতে নেমেছেন জেলেরা। জেলেদের আশা, ইলিশ ধরা পড়লে ঋণ ও দেনা করে চালানো সংসারে আবারো ফিরবে সচ্ছলতা। পুষিয়ে নিতে পারবেন অবরোধের ক্ষতি। তবে ৩০শে জুন পর্যন্ত জাটকা ধরা পড়ে এমন জালে মাছ শিকারে এখনো বহাল রয়েছে নিষেধাজ্ঞা।

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল থেকে হাইমচর উপজেলার চরভৈরবী পর্যন্ত প্রায় ৯০ কিলোমিটার এলাকায় মার্চ-এপ্রিল দুই মাস ইলিশসহ সকল ধরনের মাছ আহরণ নিষিদ্ধ করে সরকার।

এই সময় মাছ আহরণ, ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ ও সরবরাহ আইনতগ দণ্ডনীয়। ‘জাটকা রক্ষা কর্মসূচি’বাস্তবায়নে এই দুইমাস পদ্মা মেঘনা নদীতে অভিযান পরিচালনা করেছেন জেলা টাস্কফোর্স। গতকাল রাতে এই নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা শেষ হয়। এরপরই ইলিশ শিকারে নামে জেলেরা।

চাঁদপুর সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের এক জেলে জানান, মাছ শিকার বন্ধ থাকায় দুই মাস দাদন ও ঋণের টাকা খরচ করে খেয়েছেন। মাছ শিকার শুরু হওয়ায় তারা এই টাকা পরিশোধ করতে পারবেন।

রামদাসদী গ্রামের জেলে হাসান বেপারী জানান, সরকারি নিষেধাজ্ঞা সময়ে তারা নদীতে মাছ আহরণ করেননি। সরকার যেটুকু সহযোগিতা করেছে তা দিয়ে সংসার চালিয়েছেন। নিষেধাজ্ঞা শেষে মাছ আহরণে নেমেছেন তারা

Tag :

ভিডিও

এই অথরের আরো সংবাদ দেখুন

Azam Rehman

জনপ্রিয় সংবাদ

নিষেধাজ্ঞা শেষে ইলিশ শিকারে নদীতে জেলেরা

আপডেট টাইম ০৪:২৬:৫১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১ মে ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক::দুই মাসের নিষেধাজ্ঞা শেষে ছয়টি অভায়াশ্রমে আজ থেকে শুরু হয়েছে ইলিশ শিকার। ইলিশসহ সব ধরনের মাছ ধরার ওপর সরকারি নিষেধাজ্ঞা গতকাল মঙ্গলবার শেষ হয়েছে। এরপর রাত থেকেই নদীতে ইলিশ শিকারে নদীতে নেমেছেন জেলেরা। জেলেদের আশা, ইলিশ ধরা পড়লে ঋণ ও দেনা করে চালানো সংসারে আবারো ফিরবে সচ্ছলতা। পুষিয়ে নিতে পারবেন অবরোধের ক্ষতি। তবে ৩০শে জুন পর্যন্ত জাটকা ধরা পড়ে এমন জালে মাছ শিকারে এখনো বহাল রয়েছে নিষেধাজ্ঞা।

চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল থেকে হাইমচর উপজেলার চরভৈরবী পর্যন্ত প্রায় ৯০ কিলোমিটার এলাকায় মার্চ-এপ্রিল দুই মাস ইলিশসহ সকল ধরনের মাছ আহরণ নিষিদ্ধ করে সরকার।

এই সময় মাছ আহরণ, ক্রয়-বিক্রয়, মজুদ ও সরবরাহ আইনতগ দণ্ডনীয়। ‘জাটকা রক্ষা কর্মসূচি’বাস্তবায়নে এই দুইমাস পদ্মা মেঘনা নদীতে অভিযান পরিচালনা করেছেন জেলা টাস্কফোর্স। গতকাল রাতে এই নিষেধাজ্ঞার সময়সীমা শেষ হয়। এরপরই ইলিশ শিকারে নামে জেলেরা।

চাঁদপুর সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের এক জেলে জানান, মাছ শিকার বন্ধ থাকায় দুই মাস দাদন ও ঋণের টাকা খরচ করে খেয়েছেন। মাছ শিকার শুরু হওয়ায় তারা এই টাকা পরিশোধ করতে পারবেন।

রামদাসদী গ্রামের জেলে হাসান বেপারী জানান, সরকারি নিষেধাজ্ঞা সময়ে তারা নদীতে মাছ আহরণ করেননি। সরকার যেটুকু সহযোগিতা করেছে তা দিয়ে সংসার চালিয়েছেন। নিষেধাজ্ঞা শেষে মাছ আহরণে নেমেছেন তারা